বগুড়া সংবাদ ডট কম (ইমরান হোসেন ইমন, ধুনট প্রতিনিধি: শীতল হাওয়া ও কুয়াশার প্রকোপে মাঝারি শৈত্য প্রবাহের ফলে হু হু করে বাড়ছে শীত। শীতের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় কনকনে ঠান্ডায় জনজীবনে কিছুটা দূর্ভোগ নেমে এসেছে। তাই এই শীতে নিম্ন আয়ের মানুষগুলোর পোশাক কেনার একমাত্র ভরসা হয়ে উঠেছে ফুটপাত বা খোলা মাঠের ভ্রাম্যমান মার্কেট। তেমনটি একটি পুরাতন শীতের পোশাকের মার্কেট গড়ে উঠেছে বগুড়ার ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের খোলা মাঠে। দামও হাতের নাগালে থাকায় নিম্ন আয়ের মানুষগুলো ওই মার্কেটে কেনাকাটা করতে ভীর করছেন।

জানাযায়, যুগ যুগ ধরে যমুনার ভাঙ্গনে পূর্ব বগুড়ার ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ী ও ভান্ডারবাড়ী ইউনিয়নের প্রায় ১০/১৫টি গ্রাম নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। তাই ভাঙ্গন কবলিত এলাকার লোকজন বণ্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ এবং চরে ঘরবাড়ী নির্মান করে বসবাস করে আসছে। এসব লোকজনের জীবিকা নির্বাহের একমাত্র উপায় নদী বা চর। কেউ চরে ঘাস সংগ্রহ করে এবং কেউ নদীতে মাছ ধরেই চলে অনেকের সংসার।

যমুনার তীরবর্তী এলাকায় বসবাস করায় ওই এলাকায় শীতের প্রকোপ অনেক বেশি। তাই শীতকালে এসব নিম্ন আয়ের মানুষগুলোর ভরসা হয়ে ওঠে কম দামের পুরাতন পোশাক। সরেজমিনে গোসাইবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের খোলা মাঠে দেখা যায় ২৫/৩০ জন ব্যবসায়ী পুরাতন শীতের পোশাকের পসরা সাজিয়ে বসেছেন। স্বাচ্ছন্দে কেনাকাটাও করছেন অনেকেই। ক্রেতা মজিবর প্রামানিক জানান, খোলা মাঠে পুরাতন শীতের পোশাকের দাম অনেক কম। তাই তার নাতি নাতনীদের নিয়ে এসেছেন শীতের পোশাক কিনতে।

ব্যবসায়ী জাকির হোসেন বলেন, যমুনার আশপাশে শীত একটু বেশি হয়। তাই অন্য এলাকার চেয়ে এখানে শীতের পোশাকের চাহিদা প্রতিবছর বেড়ে যায়। এছাড়া দামও অনেক কম। তাই নিম্ন আয়ের মানুষগুলো এখান থেকেই কেনাকাটা করেন।

 

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন