বগুড়া সংবাদ ডট কম (শিবগঞ্জ প্রতিনিধি রশিদুর রহমান রানা) : শিবগঞ্জ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ সাবুর উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় পাল্টে যাচ্ছে এলাকার চিত্র। তার বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড ব্যাপক প্রশংসা অর্জন করেছে। উন্নয়ন ছাড়াও গ্রাম আদালতের মাধ্যমে জনগনের সমস্যা সমাধান করে যাচ্ছে।
সরজমিনে গিয়ে ও এলাকাবাসীর সূত্রে জানাযায় ২০১৬ সালে ২ সেপ্টম্বর চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব গ্রহন করার পর থেকে এলাকাবাসীর উন্নয়নে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন চেয়ারম্যান সাবু। পরিষদের দীর্ঘ ২৫ বছরের জরার্জীন মূল ফটক ভেঙ্গে ৭ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নতুন আধুনিক ফটক নির্মান করছেন। পরিষদকে আরো সুন্দর করার জন্য পরিষদের ভিতরে বিভিন্ন প্রজাতীর ফুলের বাগান করেছে যার ফলে স্কুল ছাত্র ছাত্রী ছাড়াও এলাকাবাসী এখানে বিনোদনের একটি জায়গা পেয়েছে। নতুন ও পুরাতন ভবনের ৩ লক্ষ টাকা ব্যায়ে রং, ১ লক্ষ টাকা ব্যায়ে দরজা জানালা আংশিক মেরামত, নতুন ও পুরাতোন ভবন, ও গ্রাম আদালতের সোলার প্লান, ইউনিয়নের দূর্যোগ পূর্ণ জরার্জীন্ন রাস্তার সোলিং, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাপটপ নারিকেল চারা বিতরণ হত দরিদ্রদের মাঝে ছাগল বিতরণ, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের জন্য টিউবয়েল এবং ইউনিয়ন পরিষদকে ডিজিটাল সেন্টারকে আধুনিকরন সহ বিভিন্ন্ উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছেন। দীর্ঘদিন ধরে শিবগঞ্জ গুজিয়া হাটে খোলা আকাশের নিচে বৃষ্টিতে ভিজে মাছ ও মাংসা বিক্রেতারা মাছ ও মাংস বিক্রি করতেন। তাদের পরিত্যাক্ত পানিতে এলকার দূগন্ধ ছড়িয়ে পড়ার ফলে হাটে আসা লোকজনরা গন্ধে অতিষ্ট হয়ে পড়তো। ইতিমধ্যে তিনি ৪ লক্ষ টাকা ব্যায়ে মাছ ও মাংস বিক্রেতার জন্য একটি সেড নির্মাণ করে বিক্রেতাদের দীর্ঘদিনের চাওয়া পাওয়া পূরণ করেছেন। শুধু উন্নয়ন নয় বিচারকার্যেও আস্থা অর্জন করেছেন চেয়ারম্যান সাবু। তিনি গ্রাম আদালতের মাধ্যমে এলাকার ছোট খাটো ঝগড়া বিবাদ গুলো মিমাংসা করে দেন এবং তা মেনে নেন বাদী ও বিবাদীরা। যার ফলে হয়রানী ও আর্থিক দন্ড থেকে রেহায় পাচ্ছে এলাকাবাসী। এর আগে যেখানে টাকা নিয়ে বয়স্ক ভাতা বিধবা ভাতা ও প্রতিবন্ধি ভাত কার্ড বিতরণের অভিযোগ থাকলেও এ চেয়ারম্যানের অবস্থায় কোন আর্থিক লেনদেন ছাড়ায় তা সুষ্ঠ ভাবে প্রাপ্ত ব্যক্তিদের মাঝে বন্টণ করা হচ্ছে। চক গুজিয়া গ্রামের মোঃ শাহ আলম বলেন আমরা যখন কোন সমস্যা নিয়ে তার কাছে আসি, তখন তিনি তা সুষ্ঠ ভাবে আমাদেরকে সমাধান করে দেন। বিগত চেয়ারম্যান যে কাজগুলো করতে পারেননি, এ চেয়ারম্যান সে কাজ গুলো করছে। তিনি উন্নয়নের আমাদের এলকার চিত্র পাল্টে দিয়েছেন। তার এ উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহনেওয়াজ ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবু নাছর মোহাম্মাদ আলমগীর হোসেন পরিদর্শন করে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বলে জানা যায়। এব্যাপারে চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ সাবু বলেন আমি আমার সাধ্যমত চেষ্টা করছি জনগনের মঙ্গলের জন্য ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তা ঘাট ছোট খাটো ব্রিজ বক্স কালভার্ট সরকারি অনুদানের সুষ্ঠ বন্টন সহ ইউনিন বাসীর উন্নয়নের জন্য আমার চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন