বগুড়া সংবাদ ডট কম (শাজহানপুর প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান) : মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তান সরকারের প্রথম গ্যারিসন পতন হয় বগুড়া শাজাহানপুরের আড়িয়া গ্যারিসন। পাকহানাদার বাহিনীর গুলিতে শহীদ হন টগবগে যুবক মাসুদ। বাংলার দামাল ছেলে শহীদ মাসুদের স্মৃতি রক্ষার্থে স্থানীয়রা আড়িয়া বাজারের নতুন নামকরণ করেন শহীদ মাসুদ নগর। কিন্তু স্বাধীনতার ৪৭ বছরেরও সরকারী ভাবে সেখানে গড়ে উঠেনি কোন স্মৃতিসৌধ। স্থানীয় ভাবে গড়ে উঠা স্মৃতিস্তম্ভটিও কিছু দিন পূর্বে সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সময় ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে।

সেই নিশ্চিহ্ন স্মৃতিসৌধে শহীদ মাসুদের প্রতি সম্মান জানিয়ে ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুষ্প অর্পণ করা হয়েছে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কানিজ ফাতেমা লিজা বিকেল ৩টায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে সাথে নিশ্চিহ্ন স্মৃতিস্তম্ভের পাশে শহীদ মনিরুজ্জামান পাঠাগার ও সংঘ চত্তরে মেহগনী গাছের গোড়ায় পুস্পমাল্যটি অর্পণ করেন।

স্থানীয় ব্যক্তিত্ব ডেমাজানী কলেজের সহকারী অধ্যাপক আওরঙ্গজেব ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এটা কোন ভাবেই মেনে নেয়া যায় না। স্বাধীনতার ৪৭ বছরেও এখানে কোন সরকারী ভাবে স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হয়নি। জনপ্রতিনিধিসহ প্রশাসনের উদাসিনতার কারণে শহীদ মাসুদ স্মৃতি অবহেলিত ভাবে পড়ে রয়েছে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কানিজ ফাতেমা লিজা জানান, ইতোমধ্যে স্মৃতিসৌধ কমপ্লেক্র নির্মাণের জন্য ৩৫ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। জায়গার অভাবে তা হয়ে উঠছে না। তবে অল্প কিছু দিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন