বগুড়া সংবাদ ডটকম (আনোয়ার হোসেন, নামুজা প্রতিনিধি) : সোমবার সকালে বগুড়া সদর উপজেলার নামুজা ইউপির সরদার পাড়া গ্রামে মাথায় হেলমেট পড়ে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে একদল অজ্ঞাত ব্যাক্তিরা উক্ত গ্রামে ঘোরাফেরা করতে থাকে। এমন সংবাদ পেয়ে বগুড়া সদর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই মুনজুরুল ভূঁঞা’র নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। পুলিশের উপস্থিতি ও তৎপরতায় পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়। জানা যায়, নামুজা সরদার পাড়া গ্রামে পূর্ব বিরোধের জের ধরে বেশ কিছু দিন যাবৎ চলা বিবাদ ধীরে ধীরে তা সংঘর্ষে রুপ নিয়ে মারাত্বক আকার ধারণ করে। এর ধারাবাহিকতায় ওই গ্রামে মারপিটে মহিলাসহ বেশ কয়েকজন গুরুত্বর আহত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ওই গ্রামের কয়েক জনকে আসামি করে মামলা দায়ের হয়। উক্ত ঘটনাটি নিয়ে নামুজা বন্দরে গত ৫ নভেম্বর বিএনপি সমর্থিত লোকজন কর্তৃক একটি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। অপরদিকে পরদিন ৬ নভেম্বর আওয়ামী লীগ সমর্থিত লোকজন কর্তৃক একটি পাল্টা মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয় উক্ত দুইটি মানববন্ধনে বগুড়া সদর থানার পুলিশ উপস্থিত ছিলেন এবং ওই দুইটি মানববন্ধনের সংবাদটি বগুড়ার স্থানীয় কয়েকটি পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। এর পর থেকেই ঘটনাটি ক্রমশই আশে পাশের গ্রামের আওয়ামী লীগ ও বিএনপির লোকজনের মধ্যে তা দলীয় কোন্দলে রুপ নেয়। এতে করে ওই গ্রামে প্রায় প্রতিদিন সকালে একটি করে নতুন ঘটনার সৃষ্টি হচ্ছে। তারই ধারা বাহিকতায় ছড়িয়ে পড়ছে দলীয় প্রভাব। যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ দেখা দিতে পারে বলে সচেতন মহল ধারণা করছে। সচেতন মহল অতি সত্তর উক্ত গ্রামে শান্তি শৃংঙ্খলা রক্ষায়, প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন সময়ে মারপিট ও সংঘর্ষে আহতরা হলেন যথাক্রমে: সরদার পাড়া গ্রামের মিজানুর রহমানের স্ত্রী মোছাঃ আদরী, মৃত বুলুর পুত্র আলমগীর হোসেন, মোসলম উদ্দিনের পুত্র শাহ আলম, সিদ্দিকের পুত্র আনোয়ার হোসেন, শুকুর আলীর পুত্র শামিম হোসেন, আতিকুর রহমানের স্ত্রী মোছাঃ লাভলী, জোব্বারের পুত্র মোঃ মান্নু মিয়া, আবু মোল্লার পুত্র মোঃ মিলু।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন