বগুড়া সংবাদ ডটকম (আনোয়ার হোসেন, নামুজা প্রতিনিধি)ঃ বগুড়ার নামুজা, বুড়িগঞ্জ, মাঝিহট্ট, পীরব ও পাইকড় ৫টি ইউনিয়ন জুড়ে নামুজায় একটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র /থানা স্থাপন করার দাবী জানান এলাকাবাসী। নামুজায় আছে ১টি ডিগ্রী কলেজ, ২টি উচ্চ বিদ্যালয়, ফাজিল মাদ্রাসা, নামুজা মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ অনেক প্রাথমিক বিদ্যালয়, বেশ কয়েকটি কেজি স্কুল, হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা,সোনালী ব্যাংক, খাদ্য গুদাম, ২টি বিরাট গরু ছাগলের হাট, ১টি ডাকঘর, ১টি ভূমি অফিস, উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র, পশু প্রজনন কেন্দ্র, বিশাল খেলার মাঠ, পাঠাগার, এবং সরকারি বে-সরকারি ছোট বড় অনেক প্রতিষ্ঠান থাকলেও পুলিশ প্রসাশনের কোন ফাঁড়ী বা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র নাই। ইতি পূর্বে নামুজায় পুলিশ ফাঁড়ী ছিল। তাহা হঠাৎ করে তুলে নেওয়া হয়। ফলশ্র“তিতে নামুজা, বুড়িগঞ্জ, মাঝিহট্ট, পীরব ও পাইকড় ৫টি ইউনিয়নে খুন, রাহাজানী, সন্ত্রাসী, ডাকাতি, ছিনতাই,মাদক সেবন ও চোরাকারবারীসহ বিভিন্ন প্রকার অপরাধমূলক কর্মকান্ড ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

নামুজা থেকে বগুড়া সদর থানা ১৮কিলোমিটার, শিবগঞ্জ থানা ১৫কিলোমিটার, কাহালু থানা ১৭কিলোমিটার দুরত্ব হওয়ায় অত্র এলাকাটি ক্রাইম স্পট হিসাবে বেছে নিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এখানে প্রতি নিয়ত ঘোরাফেরা করে দাগী ও ফেব্র“য়ারী আসামী সহ ক্রাইম জগতের অপরিচিত লোক। অত্র এলাকার আইন শৃংখলার কথা চিন্তা করে নামুজায় একটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র/থানা স্থাপন করার দাবী জানান অত্র এলাকার সচেতন মহল।

অতি সত্তর নামুজায় একটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র /থানা স্থাপনের জন্য সংশি¬ষ্ট কতৃপক্ষের নিকট আকুল আবেদন জানান নামুজা তথা অত্র এলাকার সচেতন মহল। ১৯৭৪ সালে তৎকালীন সরকার প্রধান নামুজা থানা গঠনের লক্ষ্যে এলাকা পূনঃ ন্যিাস কমিটির দ্বারা নামুজা ও সোনাতলা নামে ২টি থানা গঠনের সুপারিশ করা হয়েছিল।

তৎকালিন সময় নামুজা ও সোনাতলা থানা গঠন কমিটির সভাপতি ছিলেন তছলিম উদ্দিন, ১৯৭৪ সালের মার্চ মাসে মামুদুল হাসান খান ও ডাঃ জাহেদুর রহমান নামুজায় পুলিশ তদন্তকেন্দ্র স্থাপনের জন্য সুপারিশ করলে তৎকালিন সরকার প্রধান বঙ্গবন্ধ শেখ মজিবুর রহমান নামুজা ও সোনাতলা থানা গঠনের আশ্বাস দেন। কিন্তু বঙ্গবন্ধু নিহত হওয়ার পর নামুজা থানা গঠনের কাগজ পত্র ফাইল চাপা পড়ে থাকে। ১৯৮৩ সালে প্রশাসন বিকেন্দ্রী করণ সময়ে সোনাতলা থানা বাস্তবায়ন হলেও নামুজা বাসীর প্রাণের দাবী পূরুণ হয়নি। সেই সময় বগুড়া জেলা পুলিশ প্রশাসন যথা নিয়মে নামুজা থানা গঠনের সুপারিশ করলেও তা ফাইল বন্ধী রয়েছে। স্থানীয় সাংবাদিক ও সূধীজনের এক মতবিনিময় সভায় বক্তারা বিষয়টি প্রশাসনের শুভ দৃষ্টিতে আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন