বগুড়া সংবাদ ডটকম (নামুজা প্রতিনিধি আনোয়ার হোসেন)ঃ বগুড়ার শিবগঞ্জের বুড়িগঞ্জে শীতের আগমন বার্তা জানালো অতিথি পাখি। পাখি ডাকা ছাঁয়া ঢাকা সবুজ শ্যামল বাংলাদেশে প্রতি বছরই শীতের আগমনের সাথে সাথে আগমন ঘটে প্রচুর অতিথি পাখির। হরেক রকমের এসব অতিথি পাখি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ হতে চলে আসে বাংলাদেশে। ২১সেপ্টেম্বর বুড়িগঞ্জ বিলহামলার বিস্তৃত মাঠে দেখা যায় শামুকখোল নামের অনেক অতিথি পাখিকে। এর বৈজ্ঞানিক নাম Anastomus। ইংরেজি নাম Asian Openbill। বাংলায় শামখোল বা শামুকভাঙ্গা। Ciconiidae (সাইকোনিডি) গোত্রের অন্তর্গত এক প্রজাতির শ্বেতকায় বৃহদাকৃতির পাখি। এশীয় শামুকখোলের বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ ‘হাই তোলা মুখের পাখি’। সারা পৃথিবীতে বিশ লাখ সত্তর হাজার বর্গ কিলোমিটারের এক বিশাল এলাকা জুড়ে এদের আবাস। বিগত কয়েক দশক ধরে এদের সংখ্যা ক্রমেই কমছে। তবে আশার কথা এই যে, বাংলাদেশে বর্তমানে আবার এদের ব্যাপকভাবে দেখা যাচ্ছে। ভারত, নেপাল ও হিমালয়ের এলাকা থেকে আগত এসব অতিথি পাখি বাংলাদেশে সাধারণতঃ (তাদের প্রজননকালীন সময়) জুলাই থেকে অক্টোবর পর্যন্ত অবস্থান করে থাকে। বাংলাদেশের বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইনে এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত। এশীয় শামুকখোলের কোন প্রজাতি নেই। উপযুক্ত আবওয়া, পরিমিত খাবারের জোগান ও নিরাপত্তা থাকলে সাধারণতঃ এরা কোন জায়গা থেকে নড়ে না। বিচিত্র সৌন্দর্যের এই পাখি শিকার করা না হলে প্রতি বছর এশীয় শামুকখোলের আগমন ও সংখ্যা বাড়বে বলে সুধীজনদের বিশ্বাস।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন