বগুড়া সংবাদ ডট কম (ধুনট প্রতিনিধি ইমরান হোসেন ইমন) : বগুড়ার ধুনটে স্বামীর ঘর থেকে সাহিদা খাতুন (১৯) নামের এক নববধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে গোপালনগর ইউনিয়নের শেহুলাবাড়ী গ্রাম থেকে ওই নববধুর লাশ উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়সূত্রে জানাগেছে, গোপালনগর ইউনিয়নের শেহুলাবাড়ী গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে আব্দুল মোত্তালেবের সাথে প্রায় ১০ মাস আগে মথুরাপুর ইউনিয়নের কাশিয়াহাটা গ্রামের আমিনুল ইসলামের মেয়ে সাহিদা খাতুনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর সে স্বামীর বাড়ীতেই দাম্পত্য জীবন কাটিয়ে আসছিল। বুধবার রাত ১০টায় সাহিদা খাতুনের নানীর স্বাভাবিক মৃত্যু হয়। এসংবাদ শুনে সে রাতেই যাওয়ার বায়না ধরে। কিন্তু তার স্বামী মোত্তালেব বৃহস্পতিবার সকালে তাকে নিয়ে যেতে চায়।
নিহতের বাবা আমিনুল ইসলাম জানান, তার মেয়ে কোন কারনেই আত্মহত্যা করতে পারে না। জামাই আব্দুল মোত্তালেব তাকে নির্যাতনের পর হত্যা করে ঘরের তীরের সাথে ঝুলিয়ে রেখেছে। এবিষয়ে তিনি থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
নিহতের স্বামী আব্দুল মোত্তালেব বলেন, নানী শাশুড়ীর মৃত্যুর সংবাদ শুনে সাহিদা রাতেই যেতে চেয়েছিল। কিন্তু অনেক রাত হওয়ায় পরদিন সকালে যেতে চেয়েছিলাম এবং সেও রাজি ছিল। এরপর আমরা এক সাথে ঘুমিয়ে পড়ি। কিন্তু ভোর রাতে ঘরের তীরের সাথে ওড়না পেঁচানো অবস্থায় দেখতে পাই। তবে তাকে কোন নির্যাতন বা হত্যা করা হয়নি বলে তিনি দাবি করেন।
ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। এবিষয়ে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন