বগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : বগুড়ার সান্তাহার সারের বাফার গুদামের সাবেক ইনচার্য নবির উদ্দিন ও সান্তাহার শহরের ঠিকাদারী ব্যবসায়ী ও আদমদীঘি উপজেলা শ্রমিকলীগের আহবায়ক রাশেদুল ইসলাম রাজার বিরুদ্ধে এক শত ৫৩ কোটি টাকার রাসায়নিক সার আত্মসাতের অভিযোগে বুধবার সকালে আদমদীঘি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার বাদী হয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশন বগুড়ার সমন্বিত কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ আমিনুল ইসলাম। আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্য মোঃ মনিরুল ইসলাম মনির জানান, বাংলাদেশ কেমিকেল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন (বিসিআইসি)’র সাবেক উপ-প্রধান প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) ও সান্তাহারস্থ রাসায়নিক সারের আপদকালীন মজুদাগার (বাফার) এর ইনচার্য মোঃ নবির উদ্দিন খান এবং সান্তাহার শহরের বাসিন্দা রাজা ইন্টার প্রাইজের মালিক মোঃ রাশেদুল ইসলাম রাজা যোগসাজস করে। তারা ২০১৩ সালের ১ জুলাই থেকে ২০১৬ সালের ২৪ জুন তারিখের মধ্যে ৫২ হাজার ৩ শত ৪২ মেট্টিক টন সার যার মুল্য ১ শত ৫৩ কোটি ৩৬ লাখ ১৩ হাজার ৭শত ৫২ টাকার সার বিভিন্ন পরিবহন ঠিকাদারের নিকট থেকে গ্রহন করে। কিন্তু মজুদাগারের স্টক রেজিস্টারে লিপিবদ্ধ না করে আত্মসাৎ করেন। এই আত্মসাৎ ঘটনায় ধারা ৪০৯/৪২০ ও ১০৯ প্যানেল কোড তৎসহ দুদুক আইনে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদমদীঘি থানায় সার আত্মসাত সংক্রান্ত এটি দুদুকের দ্বিতীয় মামলা। এর পুর্বে ৬ কোটি টাকার রাসায়নিক সার আত্মসাতের অভিযোগে দুদুক ২০১৭ সালের ২ অক্টোবর অপর একটি মামলা দায়ের করেন। সে মামলায় সান্তাহার বাফার ইনচার্য নবির উদ্দিন খান, সার আমদানী কারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স সাউথ ডেল্টা শিপিং এন্ড ট্রেনিং গ্লোব এর নির্বাহী পরিচালক মশিউর রহমান সান্তাহার বাফার স্টক গুদামের সাবেক হিসাব কর্মকর্তা মাসুদুর রহমানকে আসামী করা হয়। সেই মামলায় সান্তাহার বাফার স্টক গুদামের ইনচার্য নবির উদ্দিন খান জামিনে রয়েছে বলে জানা গেছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন