বগুড়া সংবাদ ডট কম : উচ্চ আদালতের নির্দেশে খুলে দেয়া হয়েছে বগুড়ার চার তারকা হোটেল নাজ গার্ডেনের বার। প্রায় সাড়ে চার মাস বন্ধ থাকার পর সোমবার রাত ৭টার দিকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ জহুরুল ইসলামের উপস্থিতিতে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বার এর গোডাউন ও বার এর গেটের সিলগালা খুলে দেয়। এ সময় জেলা মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক দিলারা রহমান, সদর সার্কেলের পরিদর্শক মোঃ শাহজালাল ও উপ-পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম সহ হোটেলে কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষ বগুড়া জেলা প্রশাসনের সহায়তায় গত ১১ জুলাই রাতে নাজ গার্ডেনের এ বার বন্ধ করে জরিমানা করেন। এর কয়েকদিন পর বার এর লাইসেন্সও বাতিল করেন। তখন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর অভিযোগে বলেছিল, লাইসেন্স এর শর্ত ভঙ্গের কারনে বার বন্ধ করে লাইসেন্স বাতিল করা হলো। এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে হোটেল নাজ গার্ডেন এর পক্ষে বার ম্যানেজার শোয়েব আলী বাদী হয়ে গত ৬ আগষ্ট সুপ্রীমকোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে রিট পিটিশন দাখিল করেন। বিচারপতি তারিক উল হাসান ও বিচারপতি মোঃ সরোওয়ার্দির নেতৃত্বাধীন আদালত লাইসেন্স বাতিল ৪ মাসের জন্য স্থগিত করে ৭ দিনের মধ্যে বার খুলে দেয়ার আদেশ দেন। সেই সাথে স্বরাষ্ট্র সচিব সহ ৮জন বিবাদীকে কারণ দর্শাও নোটিশ জারী করেন। কিন্তু বার খুলে না দিয়ে এ আদেশের বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সুপ্রীম কোর্টের আপিল বিভাগে লিভ টু আপিল দায়ের করেন। এরপর গত ১৫ অক্টোবর প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ৭ সদস্যের আপিল বিভাগের পূর্নাঙ্গ বেঞ্চে শুনানী শেষে সরকার পক্ষের আপিল আবেদন খারিজ করে হাইকোর্ট বিভাগের আদেশ বহালের নির্দেশ দেন। এ বেঞ্চের অন্য বিচারপতিগন হলেন, বিচারপতি ইমান আলী, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী. বিচারপতি মীর্জা হোসাইন হায়দার, বিচারপতি জিনাত আরা, বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিকী ও বিচারপতি মোঃ নূরুজ্জামান। আদালতে রাষ্ট্র পক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নী জেনারেল মাহবুবে আলম ও বাদী পক্ষে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবি আব্দুল বাছেত মজুমদার।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন