বগুড়া সংবাদ ডট কম : বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসাদুর রহমান দুলু বলেছেন, মানুষের কল্যানে আমাদের সকলকে কাজ করতে হবে। তাহলে মৃত্যুর পরও মানুষ শ্রদ্ধাভরে স্মরন করবে। কর্মজীবনে সমাজের কল্যান, দেশের কল্যান চিন্তা করতে হবে। যে কাজে সকল শ্রেনী পেশার মানুষ উপকৃত হবে, সেই পথেই এগিয়ে যেতে হবে। মৃত্যুর পর মানুষ তার কর্মের মধ্যেই বেঁচে থাকে। তিনি সকলকে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার আহবান জানান। তিনি সোমবার বগুড়ার বিশিষ্ট হোমিও চিকিৎসক, গবেষক, লেখক, শিক্ষাবিদ ডাঃ এ. কে. এম. আব্দুর রহমান স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কথাগুলো বলেন। বগুড়া হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজের সদ্য প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ডাঃ আব্দুর রহমান বগুড়ার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা, অধ্যক্ষ, প্রধান শিক্ষক হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। গতকাল সোমবার বগুড়া হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ মিলনায়তনে তাঁর স্মরন সভায় সভাপতিত্ব করেন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ডা: আইয়ুব হোসেন। এতে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড সদস্য ডা: এস এম মিল্লাত হোসেন, প্রতিষ্ঠানের গভর্ণিং বডির সদস্য আব্দুস সালাম বাবু, সাবেক অধ্যক্ষ ডা: আব্দুস সামাদ, ডা: মোস্তফা আলম, ডা: হাসান আলী, ডা: মঈন উদ্দীন, ডা: এস. এম আমির উদ্দীন, ডা: আবুল হোসেন, ডা: এ. কে. ফেরদৌস আলী, ডা: ইয়াছিন আলী, ডাঃ ইসমাঈল হোসেন, ডা: শাহজাহান আলী, ডা: প্রমিত কুমার মন্ডল, ডা: হুমায়ন কবির, ডাঃ আতিকুর রহমান সুমন, ডা: শাহ গাজী, ডা: আব্দুল আলীম, ডা: ফিরোজ। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন হাফেজ মাওলানা আব্দুল মোমিন।সভায় বক্তারা বলেন, প্রয়াত ডাঃ আব্দুর রহমান ছিলেন বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা। তিনি সুনামের সাথে এসব প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। উত্তরাঞ্চলে হোমিও শিক্ষার বিস্তারে তাঁর অবদান চিরদিন শ্রদ্ধার সাথে স্মরন করবে সবাই। তিনি শিক্ষকতা পেশার পাশাপাশি হোমিও চিকিৎসার মাধ্যমে দূরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সার নিরাময়ে চিকিৎসা পদ্ধতি আবিস্কার করেছেন। তাঁর লেখা বই শিক্ষার্থী ও চিকিৎসকদের আগামীর চলার পথে সহায়তা প্রদান করবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন