বগুড়া সংবাদ ডট কম (সারিয়াকান্দি প্রতিনিধি রাহেনূর ইসলাম স্বাধীন) : বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার বিভিন্ন বাজারে বিভাগীয় বিস্ফোরক অধিদপ্তর ও পরিদর্শকের লাইসেন্স ছাড়া অবৈধভাবে বিক্রি হচ্ছে পেট্রোলিয়াম জাতীয় জ্বালানি তেল ও বিভিন্ন কোম্পানির গ্যাস সিলিন্ডার। আইনের তোয়াক্কা না করে এসব সিলিন্ডার গ্যাস ও জ্বালানি তেল যত্রতত্র বিক্রির ফলে যেকোনো সময় আগুন লেগে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির আশঙ্কা করছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও সচেতন মহল।

সরজমিন ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলার প্রধান বাজার, কুতুবপুর, চন্দনবাইশা, হাসনাপাড়া, নিজবলাইল, বড়ইকান্দি, নারচী, কড়িতলা, জোড়গাছা, কর্ণিবাড়ী, কাজলা, ফুলবাড়ী বাজারের প্রায় দেড় শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান লাইসেন্স ছাড়া অবৈধভাবে পেট্রোলিয়াম জাতীয় জ্বালানি তেল ও বিভিন্ন কোম্পানির সিলিন্ডার গ্যাসের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ব্যবসায়ীরা প্রশাসনিক বা বিস্ফোরক অধিদপ্তরের অনাপত্তি পত্র ছাড়াই স্থানীয় মুদি দোকান, চায়ের দোকান, পানের দোকান, রড সিমেন্টের দোকান, জুতার দোকান, হার্ডওয়্যারের দোকান, মুরগির দোকান ও ওয়াকশপসহ বিভিন্ন দোকানে দীর্ঘদিন ধরে খোলামেলাভাবে মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় অকটেন, পেট্রোল, ডিজেল ও এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি করছেন। জানা যায়, পেট্রোলিয়াম জাতীয় জ্বালানি তেল ও বোতলজাত গ্যাস বিক্রির জন্য বিস্ফোরক দ্রব্যের লাইসেন্স গ্রহণের পাশাপাশি এইসব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র রাখার বিধান রয়েছে। অথচ এসব ব্যবসায়ী নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই সাধারণ ব্যবসার মতোই চালিয়ে যাচ্ছে জ্বালানি তেল ও সিলিন্ডার গ্যাসের ব্যবসা। এরমধ্যে বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ীর কাছে লাইসেন্স সক্রান্ত বিষয় জানতে চাইলে তারা বিভিন্ন দলীয় পরিচয় দিয়েছেন এবং বিভিন্ন দলের নেতার নাম বলেছেন এবং তাদের সাথে কথা বলতে বলেছেন।

স্থানীয় বাজারের সাধারণ ব্যবসায়ীরা ও সচেতন মহল জানান, অসাবধানতাবসত এসব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কোনো একটিতে আগুন লাগলে বাজারে পুরো ব্যবসায়িক এলাকা ধ্বংস হয়ে যাবে। এতে ব্যবসায়ীদের জীবনের ঝুঁকির পাশাপাশি আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে। তাই জননিরাপত্তার স্বার্থে ব্যবসায়ীদের বিধি-বিধান মেনে জ্বালানি তেল ও সিলিন্ডার গ্যাস বিক্রির ব্যবসা করার অনুরোধ ও বিস্ফোরক অধিদপ্তর এবং পরিদর্শকের লাইসেন্সবিহীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তারা সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষসহ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন