বগুড়া সংবাদ ডট কম : বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রুপের আহবায়ক কমিটির কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রুপের নব গঠিত অন্তঃবর্তীকালীন কমিটির নেতৃবৃন্দ বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট এ্যাপিলেট ডিভিশনের চেম্বার জজ আদালতে সিভিল পিটিশন অফ লিভ দায়ের করলে মাননীয় বিচারপতি উভয় পক্ষের শুনানী শেষে মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগের ১৮-০৯-১৮ ইং তারিখে আদেশ স্থগিত করেন বলে শনিবার বগুড়া প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা মোটর মালিক গ্রুপের অন্তঃবর্তীকালীন কমিটির সাধারন সম্পাদক আমিনুল ইসলাম। তিনি মালিক গ্রুপের অন্তবর্তিকালীন কমিটির নেতৃবৃন্দ বিলুপ্ত আহবায়ক কমিটির বিগত তিন বছরের অধিক সময়ের আয় ব্যয়ের হিসাব এবং সংগঠনের মালিকানাধীন মাইক্রাবাস আগামী ৭ দিনের মধ্যে অন্তবর্তিকালীন কমিটির নিকট বুঝে দেয়ার জন্য আহবান জানিয়েছে। নইলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মোটর মালিক গ্রুপের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচলানার জন্য ২০১৫ সালের ৮ আগষ্ট বার্ষিক সাধারন সভায় ১০ সদস্য বিশিষ্ট গঠন করা হয়। ওই কমিটি ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন সম্পন্ন করার অঙ্গীকার করলেও তা করেননি। কমিটির আহবায়ক জেলা যুবলীগের তৎকালীন আহবায়ক ও বর্তমান জেলা আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক মন্জুরুল আলম মোহন ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে নির্বাচনের উদ্যোগে নেননি এবং ওই কমিটির ২ জন সদস্যকে বাদ দেয়ায় সংকট গবীর আকার ধারন করে। এ অবস্থায় গত ১৪ আগষ্ট ২০১৮ সমিতির ৯৩৫ জন সদস্যের মধ্যে ৮৮৬জন সদস্যেও উপস্তিতিতে অনুষ্ঠিত জরুরী তলবী সভায় মোহনের নেতৃত্বাধীন আহবায়ক কমিটি বিলুপ্ত করে ১৯ সদস্য বিশিষ্ট অন্তবর্তিকালীন কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয। ওই কমিটি আগামী ৩ মাসের মধ্যে নির্বাচনের ব্যবস্থা করবে বলে সভায় সিদ্ধান্ত হয়। এ ছাড়া বিলুপ্ত আহবায়ক কমিটির বিগত ৩ বছরের অধিক সময়ের আয় ব্যয়ের হিসেব দাবী করা হয়।
এ অবস্থায় বিলুপ্ত কমিটির আহবায়ক মোহন সম্প্রতি হাইকোর্টে রিট পিটিশন দায়ের করলে আদালত গত ১৮ সেপ্টেম্বর অন্তর্বর্তি কালীন কমিটির কার্যক্রমের উপর নিষেধাঙ্গা জারী করেন। এরপর এই নিষেধাঙ্গার বিুরদ্ধে অন্তর্বতিকালীন কমিটির নেতৃবৃন্দ সপ্রীমকোর্টের আপিল বিভাগে আপিল করলে আদালত উভয় পক্ষের শুনানী শেষে হ্ইাকোর্টের আদেশ ৪ঠা নভেম্বর পর্যন্ত স্থগিত করেন। উচ্চ আদালতের এ আদেশের পর সংবাদ সম্মেলনে ৭ দিনের মধ্যে তিন বছরের অধিক সময়ের হিসেব চাইলো অন্তবর্তিকালনি কমিটি। ওই তিন বছরে প্রায় ৩০ কোটি টাকা আয়ের সুষ্ঠু কোন হিসেব নেই বলে জানিয়েছে অন্তবর্তিকালীন কমিটি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কমিটির সভাপতি শাহ মোঃ আকতারুজ্জামান ডিউক, সাধারন সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, মন্জুরুল ইসলাম মন্জু, আব্দুল মান্নান আকন্দ প্রমুখ।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন