বগুড়া সংবাদ ডট কম (ধুনট প্রতিনিধি ইমরান হোসেন ইমন) : মাঝি পাল তুলে দে, হেলা করিস না, ছেড়ে দে নৌকা, যাব মদিনায়। বট গাছের পাতা দিয়ে এই গানটির মনমুগ্ধকর সুর বাজিয়ে যাচ্ছিলেন হযরত আলী নামের এক ব্যক্তি। তার অসাধারন পাতার বাঁশির সুর শুনে আস্তে আস্তে থেমে যাচ্ছিল পথচারীদের পথযাত্রা। পথচারীরা সবাই মন দিয়ে হযরত আলীর মনমুগ্ধকর পাতার বাঁশিতে গানের সুর শুনছিলেন। বুধবার সন্ধ্যায় ধুনট পৌর শ্রমিকলীগ কার্যালয়ে এমন দৃশ্য দেখা যায়। তার পাতার গানের সুর শুনে পৌর শ্রমিকলীগের সভাপতি ইজুল খান সহ কয়েকজন তাকে আর্থিকভাবে পুরস্কৃত করেন।
হযরত আলী ধুনট সদর ইউনিয়নের চালাপাড়া গ্রামের মৃত হেকমত উল্লাহ্ মুন্সির ছেলে। সে ছোট বেলা থেকেই বিভিন্ন পাতা দিয়ে গানের সুর বাজিয়ে আসছেন। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এবং হাট বাজারেও তিনি পাতার বাঁশির সুর শুনিয়ে মানুষকে আনন্দ দিয়ে রুজিরোজগারও করেন। এভাবেই তিনি হযরত আলী থেকে পাতাশা নামে পরিচিত হন। হযরত আলীর দুই ছেলে নির্মান শ্রমিকের কাজ করে। তাই পাতার বাঁশি বাজিয়ে মানুষের মনোরঞ্জন করে যে আয় করেন এবং সামান্য কিছু ফসলী জমি থেকে যা পান তা দিয়েই কোনমতে তার স্ত্রী জরিনা বেগমকে নিয়ে সংসার চালায়।
হযরত আলী জানান, তার পাতার বাঁশির সুর শুনে মানুষ ভালবেসে যা দেয় তা দিয়েই তিনি জীবিকা নির্বাহ করেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন