বগুড়া সংবাদ ডট কম (সাগর খান, আদমদীঘি প্রতিনিধি ঃ বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার ও নওগাঁর রাণীনগর এর আবাদ পুকুর কালীগঞ্জ এলাকার লাখ লাখ মানুষের যাতায়াতের প্রধান পথ আবাদ পুকুর আদমদীঘি সড়ক। এই ১৫ কিলোমিটার সড়কের ৪.৫০ কিলোমিটার অংশ আদমদীঘি উপজেলার। দু বছর পর পর এই অংশের মেরামত কাজ করা হলেও টেকানো যায় না সড়কটি। কাজ করার পর অল্প দিনের ব্যবধানে কার্পেটিং উঠে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। আবার কোনো কোনো স্থানে সড়ক দেবে ও ভেঙ্গে যায়। ফলে এই সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ ও অযোগ্য হয়ে পড়ে। ঘটতে থাকে একের পর এক দূর্ঘটনা।

গত কয়েক দিন আগে ১২ ফিট প্রসস্তর এই সড়কটি ১৮ ফিটে উন্নতি করার কাজ শুরু করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে সড়কটিতে রোলার ব্যবহার করা হচ্ছে।

স্থানীয়রা দাবী জানিয়েছে, সড়কটি যেন এবার টেকসই ও মজবুত করে পাকা করণ করা হয়। কুসুম্বী গ্রামের ফারুক হোসেন, মুরাদপুর গ্রামের বাবলু, সুদিন গ্রামের নজরুল ইসলাম জানান, ঘন ঘন রাস্তা নষ্ট হওয়ার কারণে জনগণকে ভোগান্তিতে পড়তে হয়। রাস্তাটি যেন এবার আধুনিক প্রযুক্তি দ্বারা পাকা করণ করা হয়। রাস্তার দায়িত্বে থাকা বগুড়ার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স শুকরা এন্টার প্রাইজ এর নির্বাহী পরিচালক আব্দুল মান্নান এর প্রতিনিধিরা জানান, আমরা উন্নত ভাবে টেকসই ও মজবুত করে রাস্তাটি পাকা করণের ব্যবস্থা করব। যাতে রাস্তাটি টেকসই ও মজবুত হয়। এ বিষয়ে আমাদের প্রতিষ্ঠান প্রধানের কোনো অনিহা নেই।

রাস্তা ভাল হলে এলাকাবাসী আরাম আয়েশে চলা-চল করতে পারবে। চলাচলে আনন্দ পাবে তারা। আমাদের কাজ করা সার্থক হবে। কাজ চলাকালীন তারা এলাকাবাসীর সহযোগিতা চান। আদমদীঘি উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল মতিন জানান, কাজটি উন্নত ভাবে করার লক্ষে এবার ২ কোটি টাকার বেশি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ১ কোটি ৯২ লক্ষ টাকায় কাজটি করছেন। তিনি জানান সড়কটি ১২ ফিট থেকে উন্নীত করে ১৮ ফিটে রূপান্তরিত করা হচ্ছে। রাস্তাটি ভাল হলে এলাকাবাসী যাতায়াতে আর কোনো সমস্যা থাকবে না।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন