বগুড়া সংবাদ ডট কম (শাজাহানপুর প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান) : বগুড়ার শাজাহানপুরে সাবেক স্ত্রীর উপর প্রতিশোধ নিতে স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে দৈহিক মিলনের সময় গোপনে ধারণ করা ভিডিও প্রকাশের হুমকি এবং করলা ও শিমে মাঁচা কর্তনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়েছে মেয়ে ও তার পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ফুলকোট পূর্বপাড়া গ্রামে।
মেয়ের বাবা আজহার আলী মন্ডল জানান, ১ বছর পূর্বে তার মেয়ে আরজিনাকে ফুলকোট বামনদিঘি গ্রামের মৃত আজাহার আলীর পুত্র রানা আহম্মেদ বাবলার (২৮) সাথে বিয়ে দেন। কিন্তু ছেলের স্বভাবগত কারনে প্রায় ৫ মাস পূর্বে মেয়ে তার স্বামীকে তালাক দেয় এবং পড়া লেখা শুরু করে। ডিভোর্সের পর থেকে রানা মোবাইলে এসএমএস করে বিভিন্ন ধরনের হুমকী দিতে থাকে। এমনকি স্বামী-স্ত্রীর দৈহিক মিলনের সময় গোপনে ধারন করা ভিডিও প্রকাশের হুমকী দিচ্ছে। ভিডিও প্রকাশ করা হলে মেয়ের ভবিষ্যৎ শেষ হয়ে যাবে এবং সামাজিক ভাবে তারা আর মুখ দেখাতে পারবেন না। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার দিবাগত রাতে তার ১০ শতাংশ জমিতে লাগানো শিম ও করলার মাঁচা কেটে ফেলেছে রানা। এতে করে তার ৪০ হাজার টাকা ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। শুধু তাই নয় তার ফসল মনে করে একই রাতে প্রতিবেশী মাসুদ নামে এক কৃষকেরও ২২ শতাংশ জমির করলা মাঁচা কেটে ফেলেছে রানা। এঘটনা থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে এবং মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।
এবিষয়ে রানা আহম্মেদ বাবলার নিকট এসএমএস’র মাধ্যমে হুমকির বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদেরকে বলেন, ওদেরকে এসএমএস ধুয়ে পানি খেতে বলেন। বিয়ের পর দৈহিক মিলনের ২টি ভিডিও ধারন করেছেন। আজাহার আলী লোকটা খুব খারাপ। ডিভোর্সের পর তার বাড়ি থেকে যা যা নিয়ে গেছে তা ফেরৎ দিতে হবে। বেশি বাড়াবাড়ি করলে ভিডিও প্রকাশ করে দেবেন। সবজি আবাদ কাটার ব্যাপারে তার কিছুই জানা নেই।
স্থানীয় ইউপি সদস্য উজ্জল হোসেন জানান, ডিভোর্সের পর হুমকি-ধামকির বিষয়টি জানতে পেরে বাবলার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে সে কথা বলতে রাজি হয়নি।
থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, ফসল কাটার বিষয়টি জেনেছেন। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন