বগুড়া সংবাদ ডট কম : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় সদস্য ও বগুড়া জেলা সভাপতি আলহাজ্ব মমতাজ উদ্দিন বলেছেন, দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগ সরকারকে পুনর্র্নিবাচিত করার বিকল্প নাই। নৌকা প্রতীকে ভোট দিলে জনগণ লাভবান হয় এবং তাদের উন্নয়ন হয়। ২০০৯-২০১৮ থেকে টানা ১০ বছর আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকায় দেশের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। ‘১৯৯৬-২০০১ এবং ২০০৯-২০১৮ সালেই দেশে সত্যিকার উন্নয়ন হয়েছে। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উত্তীর্ণ হয়েছে। ৭ দশমিক ৮ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে যা দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে দেশের অর্থনীতি মজবুত ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়েছে। সরকার ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-দিনাজপুর মহাসড়ক চার-লেনে উন্নীত করেছে। যোগাযোগ ব্যবস্থার আরো উন্নয়নের লক্ষ্যে চার লেন মহাসড়কগুলোতে ৬ লেনে রূপান্তরিত করার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। আকাশ ও নদী পথে যোগাযোগ ব্যবস্থা আরো উন্নয়নের লক্ষ্যে বেশকিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেগ্রণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে উত্তরাঞ্চলে উত্তরা ইপিজেড স্থাপন করেছিলো। বগুড়া সহ সারাদেশে একশ’টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলছে। এতে করে মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে, বেকারত্ব দূর হয়েছে। দেশের সকল ক্ষেত্রে সার্বিক উন্নয়ন হয়েছে। উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে আগামী নির্বাচনে তিনি পূনরায় নৌকা প্রতিকে ভোট দেয়ার আহবান জানান। তিনি বৃহস্পতিবার বিকেলে বগুড়া সদরের এরুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বিশাল নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কথাগুলো বলেন। এরুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জনসভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক কামাল। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্যালেন চেয়াম্যান সুলতান মাহমুদ খান রনি, সদর উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আবু সুফিয়ান সফিক, জেলা আ’লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আল রাজি জুয়েল। আওয়ামী লীগ নেতা খলিলুর রহমানের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন সফিকুল ইসলাম, তারাজুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিস আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. বসু চন্দ্রপাল, রবিউল ইসলাম লিটন, মশিউর রহমান মন্টি, মিম পোদ্দার, আব্দুর রউফ, আ: সালাম মানিক, এ্যাড. রাজু মন্ডল, মোমিনুর ইসলাম রকি, নাঈম ফেরদৗস, পলাশ , সজল শেখ, সরিফুল ইসলাম জিহাদ প্রমুখ।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন