বগুড়া সংবাদ ডট কম (সিজুল ইসলাম) : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ক্ষণ গণনা শুরু হয়েছে। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ডিসেম্বর মাসে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। রাজনৈতিক দলগুলোর প্রস্তুতির পাশাপাশি জনগণ এবং নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরাও নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন যাতে আগামী নির্বাচনে তাদের প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটে। আগামী নির্বাচন আরেকটি কারণে অধিক গুরুত্বপূর্ণ। ২০২১ সালে বাংলাদেশ জন্মের অর্ধশত বছরে পা রাখবে। তাই নাগরিক সমাজের প্রত্যাশা হলো স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপিত হোক দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশে। স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও কি আমরা দারিদ্রসীমার নিচে থাকব? এমন প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে অরাজনৈতিক নাগরিক সংগঠন “প্রত্যাশা ২০২১ ফোরাম” আয়োজনে আজ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী রাজনৈতিক দলসমূহের “নির্বাচনী ইশতেহারে জনগণের প্রত্যাশা” শীর্ষক এক নাগরিক সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। সকাল সাড়ে দশটা থেকে দুপুর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত সংলাপের সভাপতিত্ব করেন প্রত্যাশা ২০২১ ফোরাম এর চেয়ারম্যান এস এম আজাদ হোসেন। প্রথমে ফোরামের পক্ষ থেকে নির্বাচনী ইশতেহারে জনগণের প্রত্যাশিত খসড়া প্রস্তাবিত অগ্রাধিকারসমূহ তুলে ধরেন ফোরামের সহ-সভাপতি শামসুন নাহার আজিজ লীনা এবং সদস্য সচিব রুহী দাস। যাতে সংবিধান, শাসন ব্যবস্থা, অর্থ, বাণিজ্য, বিদ্যুৎ ও জ্বালানী সুবিধা, খাদ্য নিরাপত্তা, শিক্ষা, কর্মসংস্থান, আবাসন, স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, পরিবেশ, সংস্কৃতি, শিশু ও নারীর নিরাপত্তা, যুব উন্নয়নসহ নানা বিষয় তুলে ধরা হয়।
প্রত্যাশিত অগ্রাধিকারসমূহের নানা দিক নিয়ে ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সচিব এবং হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ড এর কান্ট্রি ডিরেক্টর আতাউর রহমান মিটনের সঞ্চালনায় শুরু হয় মুক্ত আলোচনা । মুক্ত আলোচনায় ২০ জন বক্তার বক্তব্যে উঠে আসে কৃষি জমি সুরক্ষা আইন, সার্বজনীন শিক্ষা ব্যবস্থা,জনপ্রতিনিধি ও সরকারি কর্মকর্তাদের সম্পদের হিসাব প্রদান,জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত, সংসদে ইয়ুথ সেল, প্রত্যেক জেলায় শিশুপার্ক নির্মাণ,গর্ভবতী মা ও শিশুদের রাসায়নিক ,কীটনাশকমুক্ত ও ভেজালমুক্ত নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা,রাজনৈতিক দলগুলোর রাজনৈতিক চর্চার জন্য পলিটিক্যাল ইনস্টিটিউট স্থাপন ও মনস্তাত্তিক গবেষণা করা, নদী খনন, জেলা শহরগুলোতে মেডিকেল কলেজ, কৃষি বিশ্বাবিদ্যালয়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ভারসাম্যের ভিত্তিতে প্রত্যেক জেলায় স্থাপন, নির্বাচনী মনোনয়নের ক্ষেত্রে প্রার্থীদের নূন্যতম যোগ্যতা নির্ধারণ, ৩৩% নারীদের মনোনয়ন,প্রত্যেক মন্ত্রণালয়গুলোতে বিষয়ভিত্তিক ব্যক্তিদের আমলা হিসেবে নিয়োগ প্রদান, ডাক্তারদের ফিস নির্ধারণ ও রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিতে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা, ফুটপাত, রেলপথ দখলমুক্ত করা, ঢাকামসহ সকল জেলাশহরগুলোকে বাসযোগ্য করবার জন্য ক্্রাশ কর্মসূচি গ্রহণ,প্রত্যেক গ্রাম মহল্লায় লাইব্রেরী,উপজেলায় বৃদ্ধাশ্রম স্থাপন, বিধবা ও প্রান্তিক নারীদের সহজ শর্তে ঋণ প্রদান স্বনির্ভরশীল করতে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণ প্রদানের মত জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়।
এরপর অতিথিদের বক্তব্যে সাবেক কৃষি সচিব আনোয়ার ফারুক বলেন “কৃষিতে বাজেট বাড়িয়ে কৃষকদের উৎপাদিত পণ্য ভোক্তাদের কাছে পৌঁছাতে হবে সরকারি উদ্যোগে এবং প্রাকৃতিক দূর্যোগ বা অন্যান্যভাবে কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হলে কৃষিঋণ মওকুফ ও ক্ষতিপূরণ প্রদান করতে হবে। এছাড়াও যুবকদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে এবং নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে হলে তাদের আর্থিকভাবে স্বচ্ছল করতে হবে তবেই দারিদ্রমুক্ত সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করা সম্ভব।”,
নিরাপদ সড়ক চাই এর চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন,“ মেধাপাচাররোধ করে মেধাবীদের দেশেই সর্বাধিক সুযোগসুবিধা প্রদান করে গবেষণাভিত্তিক সমাজ গড়তে পারলে দারিদ্রমোচনে আমরা অনেকটা এগিয়ে যেতে পারব। এছাড়াও সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর সমন্বয় সাধন অতিব জরুরী।”
সময়ের দাবী’র সম্পাদক রেজাউল করিম হাশমী তার বক্তব্যে বলেন, নির্বাচনী ইশতেহার জাতীয় ও স্থানীয় দুই রকম হওয়া উচিত এবং ইশতেহারে উল্লেখিত প্রতিশ্রুতিগুলো বাস্তবায়নে নাগরিক সমাজের উচিত সারাদেশ ইশতেহার মনিটরিং সেল গঠনের মাধ্যমে তদারকি করা। এছাড়াও মানবাধিকার ও আইনের শাসন নিশ্চিতে আগামী সংসদ নির্বাচনে সকল রাজনৈতিক দলকে বিজয়ী হলে আন্তর্জাতিক “নির্যাতনবিরোধী সনদ” এবং “গুমবিরোধী সনদ” এ স্বাক্ষর করবার প্রতিশ্রুতি ইশতেহারে উল্লেখের দাবি জানান তিনি।
নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের আলোচনা থেকে প্রাপ্ত প্রত্যাশিত অগ্রাধিকারসমূহ প্রস্তাবিত জনগণের ইশতেহারে চূড়ান্তভাবে সন্নিবেশিত করে পরবর্তীতে প্রত্যাশা ২০২১ ফোরাম এর পক্ষ থেকে তা তুলে দেওয়া হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা দলসমূহের কাছে যাতে দলসমূহের নির্বাচনী ইশতেহারে জনগণের প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন