বগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : বগুড়ার আদমদীঘিতে ছাগল বলাৎকারের মিথ্যা অভিযোগ এনে গ্রাম বৈঠকে ৭ম শ্রেনীর এক স্কুল পড়–য়া ছাত্রের পরিবারের নিটক থেকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছে মাতব্বরা। এ ঘটনাটি ঘটেছে আদমদীঘি উপজেলার নশরতপুর ইউনিয়নের পুশিন্দা গ্রামে। এদিকে জরিমানার টাকা গ্রাম্য মাতব্বর ও কতিপয় সংবাদকর্মীর মধ্যে ভাগবাটোয়ারা হওয়ায় এলাকায় ব্যাপক আলোচনার সমালোচনার ঝড় ওঠেছে।
সরজমিনে গিয়ে জানা গেছে, উপজেলার নশরতপুর ইউনিয়নের পুশিন্দা হিন্দু পাড়া গ্রামের নিপেন চন্দ্র বর্মনের ছেলে সুপত বর্মন (বিপ্লব) এর একটি গর্ভবতী ছাগলকে প্রতিবেশী ৭ম শ্রেনীর ছাত্র বলাৎকার করেছে মর্মে গত সোমবার রাতে ওই গ্রামে এক শালিস বৈঠক বসে। ওই বৈঠকে গ্রাম্য মাতব্বর নির্মল বর্মন, উদয় বর্মন, সাজু, আনোয়ার হোসেন ছাগল বলাৎকারের অপবাদে ওই শালিসের রায়ে স্কুল ছাত্র ইকবালের পরিবারের নিকট থেকে ২০হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে। এ ব্যাপারে বুধবার দুপুরে ছাগল মালিক বিপ্ল¬বের সাথে কথা হলে সে জানান, তার ওই ছাগল মাতব্বরা নিয়ে ছাগলের মূল্য বাবদ আমাকে ৫ হাজার টাকা দিয়েছে। ওই শালিস বৈঠকের মাতব্বর নির্মল বর্মন ও উদয় বর্মনের সাথে কথা হলে তারা জানান, ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে শালিস বৈঠকের রায়ে ওই ছাগলটি গ্রাম্য জিম্মায় রয়েছে এবং ছাগলের মূল্য বাবদ জরিমানা ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। জরিমানার টাকা কি ভাবে ভাগবাটোয়ারা করা হয়েছে সে বিষয়ে জানতে চাইলে মাতব্বরা সাংবাদিকদের কাছে বিষয়টি এড়িয়ে যান।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন