বগুড়া সংবাদ ডটকম (ইমরান হোসেন ইমন, ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি: এ কেমন শত্রুতা ? জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে বগুড়ার ধুনট পৌর এলাকার চান্দারপাড়া গ্রামে মুক্তিযোদ্ধা দুই শিক্ষক পরিবারের বসতবাড়ীর সামনে পোলট্রি খামারের দূষিত বর্জ্য ফেলছে শাহীন আহসান নামের এক খামারী। এতে দূর্গন্ধে ১৫ দিন যাবত ওই পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী দূর্বিসহ জীবন যাপন করছে। এবিষয়ে চান্দারপাড়া গ্রামের প্রাক্তন শিক্ষক আজাহার আলীর ছেলে রাজিবুজ্জামান পল্লব বাদী হয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ ও সরেজমিনে জানা গেছে, ধুনট পৌর এলাকার চান্দারপাড়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রাক্তন শিক্ষক মোজাম্মেল হক ও তার ভাই প্রাপ্তন শিক্ষক আজাহার আলীর সাথে একই গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে শাহীন আহসানের জমিজমা নিয়ে পূর্ব বিরোধ রয়েছে। ওই বিরোধের জের ধরে ১৫ দিন যাবত শাহীন আহসান তার ভ্যালো পোলট্রি খামারের সব দূর্ষিত বর্জ্য ওই মুক্তিযোদ্ধা শিক্ষক পরিবারের বসতবাড়ীর সামনে ফেলছেন। পোলট্রি খামারের দূর্ষিত বর্জ্যরে দূর্গন্ধে ওই পরিবার সহ আশপাশের আরো ১৫/২০টি পরিবার দূর্বিসহ জীবন যাবন করছেন। এছাড়া দূষিত বর্জ্যরে দূর্গন্ধে রোগ জীবানু ছড়িয়ে পড়ারও আশংকা রয়েছে।

ধুনট এনইউ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষক আজাহার আলী জানান, শাহীন আহসান এলাকায় প্রভাব খটিয়ে তাদের জায়গায় জোরপূর্বক খামারের দূর্ষিত বর্জ্য ফেলছে। বর্জ্যরে দূর্গন্ধে আশপাশের লোকজনও অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। ১৫ দিন যাবত কেউই খাওয়া দাওয়া করতে পারছেন না। আশপাশের লোকজন রাস্তা দিয়ে চলাচলও করতে পারছে না। তাই এবিষয়ে এলাকাবাসী প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এবিষয়ে পোলট্রি খামারী শাহীন আহসান বলেন, বর্জ্যগুলো সাময়িকভাবে ফেলা হয়েছে। তবে কয়েকদিনের মধ্যে তা পরিস্কার করা হবে।
ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাজিয়া সুলতানা বলেন, কেউ খামারের বর্জ্য ফেলে এলাকায় পরিবেশ দূষিত করলে অবশ্যই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন