বগুড়া সংবাদ ডট কম : পুলিশ হেডকোয়ার্টাস এর ইন্টেটেলিজেন্স শাখা ও বগুড়া জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখা বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় যৌথ অভিযান চালিয়ে রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার বাগদহড়া এলাকায় জঙ্গীদের গোপন আস্তানায় অভিযান চালিয়ে পুরাতন জেএমবি’র ৪ জঙ্গীকে রাইফেল বিদেশী পিস্তল, গুলি ও ধারাল অস্ত্র সহ গ্রেফতার করেছে। পুলিশের অভিযানে ৪ জন গ্রেফতার হলেও আরো ৫ শীর্ষ জঙ্গী সেখান থেকে পালিয়ে যায়।
গতকাল সোমবার দুপুরে বগুড়া পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংএ অভিযানের বিস্তারিত তুলে ধরেন বগুড়ার পুলিশ সুপার মোঃ আলী আশরাফ ভুঞা। এসময় জেলার উর্দ্ধতন পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। রংপুর ও লালমনিরহাট জেলা পুলিশ এই অভিযানে সহায়তা করে।
পুলিশ জানায়, বাগডহড়া এলাকাটি দুর্গম চর এলাকায় অবস্থান হওয়ায় জঙ্গীরা সেখানে দীর্ঘ দিন ধরে নিরাপদ আস্তানা হিসাবে গড়ে তুলেছিলো এবং সেখান থেকে সাংগাঠনিক কার্যক্রম চালাচ্ছিল। আস্তানাটি একটি প্রশিক্ষন শিবিরে পরিণত করার পরিক্লপনা তারা করছিলো। পুরতান জেএমবি’র শীর্ষ জঙ্গীরা একাধিকবার সেখানে বৈঠক করে। রংপুর এলাকার এক ইউপি চেয়ারম্যানকেও হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছিলো বলে জিজ্ঞাসবাদে আটক জঙ্গীরা জানিয়েছে।
গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে সেখানে গত রবিবার দুপুরে অভিযান চালান হয়। এসময় জেএমবি রংপুর বিভাগের দাওয়া বিভাগের প্রধান আজহারুল ইসলাম ওরফে ওয়ানুর,গঙ্গাচড়া শাখার দাওয়া বিভাগের প্রধান রংপুর জেলার গঙ্গাচরা উপজেলার আকরামুজ্জামান ওরফে মুকুল প্রধান। জেএমবি রংপুর জেলার ইছাবা (সামরিক শাখা) সদস্য, রংপুর জেলার গঙ্গাচরা উপজেলার ফারুক ওরফে সাজু এবং একই জেলার আব্দুল হাকিম ওরফে মিলন। তাদের নিকট থেকে একটি একে পয়েন্ট ২২ বোরের রাইফেল ,১৫ রাউন্ড গুলি, ২টি বিদেশী পিস্তল ও ২টি বার্মিচ চাকু,নগদ ৫৫ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এব্যপারে বগুড়া গোয়েন্দা পুলিশ বাদী হয়ে গঙ্গাচড়া থানায় মামলা করবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন