বগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : সারা দেশের ন্যায় বগুড়ার সান্তাহার পৌর শহরে মাদক বিক্রেতা ও মাদক সেবীদের বিরুদ্ধে সাড়াশি অভিযান অব্যহত রেখেছে টাউন ফাঁড়ির পুলিশ। মাদক নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশের বিশেষ মাদক বিরোধী অভিযানে সান্তাহারে পুলিশ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীসহ বেশ কিছু মাদক ব্যবসায়ি ও মাদক সেবনকারীকে গ্রেফতার করেন। ইতিমধ্যে সান্তাহার পৌর শহরের বড় বড় মাদক ব্যবসায়ীরা জেল হাজতে রয়েছে। পুলিশ প্রশাসনের মাদক বিরোধী অভিযানের ফলে ছোট ছোট মাদক ব্যবসায়ীরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছে। এক সময় মাদকের শহর হিসেবে ব্যাপক পরিচিত থাকলেও বর্তমানে সান্তাহার শান্তির শহর হিসেবে পরিচিতি লাভ করতে শুরু করেছে। সান্তাহার টাউন ফাঁড়ির ইনর্চাজ ওসি মুসা মিয়া যোগদানের পর থেকে মাদকের দৃশ্যপট পাল্টে গেছে। পুলিশের এই মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান অব্যাহত থাকায় শহরে মাদকদ্রব্য বেচা কেনা শূণ্যের কোঠায় গিয়ে দাড়িয়েছে। ফলে পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযান কে স্বাগত জানিয়েছেন অনেকে। বিশেষ করে মাদকাসক্ত পরিবারের লোকজনসহ সর্বস্তরের মানুষ এ অভিযান কে দীর্ঘ স্থায়ী করার দাবী জানিয়েছে। তাদের একটাই দাবী আর কখনো এলাকায় মাদক বিক্রয় যেন না হয়।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সান্তাহার রেলগেট, মালগুদাম, মালশন, বশিপুর, বাইপাস, চা-বাগান, সাইলো রোড, ইয়ার্ড কলোনী, দৈনিক বাজারে কোন মাদক ব্যবসায়ীর দেখা মিলল না বা অস্তিত্ব নেই। সান্তাহার দৈনিক বাজারে এক ব্যবসায়ী শওকত শেখ জানান, আগে এখানে মাদক ব্যবসা হতো কিন্তু বর্তমান সান্তাহার পুলিশে ব্যাপক অভিযানের ফলে আর কোন মাদক ব্যবসায়ী কে মাদক বিক্রয় করতে দেখতে পাওয়া যায় না। সান্তাহার মালশন গ্রামের মোহাম্মদ আলী বলেন, আগে আমাদের গ্রাম মাদকের জন্য বিখ্যাত ছিল কিন্তু দীর্ঘ দিন হলো আর কোন মাদক ব্যবসায়ী কে চোখে পড়ে না বা আর কোন মাদক বিক্রয় হয় না। সান্তাহার বশিপুর শখের পল্লীর মকলেছ রহমান বলেন এখানে একটি বিনোদন কেন্দ্র আছে যা বিভিন্ন ধরনের মানুষেরা বিনোদনের জন্য আসে এখানে তো মাদক ব্যবসার প্রশ্ন উঠে না।
সান্তাহার টাউন পুলিশ ফাঁড়ির সূত্রে জানা যায়, মাদক বিরোধী অভিযানের ফলে সান্তাহারে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী হযরত, টুকু, সুমন, আনোয়ার, রবিউল, করিম, সোহেল, শাওন, রেজাউনন্নবী, বাদল, রমজান আলী, মিলন হোসেন, কাজল হোসেন, মিনহাজ, রুস্তম, শিবলু, রাকিব, সাকিব, জুলিসহ বেশ কিছু মাদক ব্যবয়াসী কে গ্রেফতার করে বগুড়া জেল হাজতে পাঠিয়েছে। এর মধ্যে কেহ কেহ জামিনে এসে ফেরী করে বাদাম, মুড়ি মাখা, টমটম চালিয়ে সংসার চালাচ্ছে। আর বাকীঁ সব মাদক ব্যবসায়ীরা বগুড়া জেল হাজতে রয়েছে। গ্রেফতারকৃত সকলের বিরুদ্ধে একাধিক মাদকদ্রব্য আইনের মামলা রয়েছে। শহরে মাদক মুক্ত পরিবেশ রাখতে স্কুল কলেজের শিক্ষক, সামাজিক ব্যক্তিত্ব ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের মানুষ এ অভিযান কে দীর্ঘ স্থায়ী করে মাদক ব্যবসায়ীদের এলাকায় থেকে উচ্ছেদের দাবী জানিয়েছে। সকলের একটাই দাবী ওই সব মাদক ব্যবসায়ীরা এলাকায় ফিরে এসে আর যেন মাদক বিক্রি করতে না পারে এবং এই অভিযান যেন চলমান থাকে।
এই বিষয়ে সান্তাহার টাউন পুলিশ ফাড়িঁর অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুসা মিয়া বলেন, মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত রয়েছে এবং মাদকের সাথে যারা জড়িত তারা গা-ঢাকা দিলেও রক্ষা পাবে না। যারা এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে, তাদের খোঁজ- খবর নেয়া হচ্ছে। তাদের সন্ধান পাওয়া গেলে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন