বগুড়া সংবাদ ডট কম : পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বগুড়ার গভর্ণিং বডির সভাপতি ও পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা বিপিএম বলেছেন, আদর্শ শিক্ষা ও সুশিক্ষা ছাত্র-ছাত্রীদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলে শিক্ষার মূল লক্ষ্য বিবেকবোধকে জাগ্রত করা। আজকের নবীণ ছাত্র-ছাত্রীরা নিজেদেরকে সুনাগরিক হিসাবে গড়ে তুলবে এবং আমাদের দেশকে প্রকৃত অর্থে “সন্ত্রাস, মাদক ও জঙ্গীমুক্ত সোনার বাংলাদেশ” হিসাবে বিশ্বের কাছে মডেল হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করবে। অদ্য বুধবার বেলা ১১.০০ টায় পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিব নবীনবরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ জনাব মো: শাহাদৎ আলম ঝুনু। অন্যান্য অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানের প্রশাসক ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জনাব মকবুল হোসেন, সহকারী পুলিশ সুপার জনাব কুদরত-ই-খোদা শুভ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সহকারি প্রধান শিক্ষক আশরাফ আলী মন্ডল, কলেজ ইনচার্জ নাছিমা খাতুন, সহকারি অধ্যাপক কাজী মুনজুরুল হক, সহকারি অধ্যাপক ও শিক্ষক প্রতিনিধি এ.এস.এম. সালাহ্ উদ্দিন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন প্রভাষক অপূর্ব কুমার মজুমদার। প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ শাহাদৎ আলম ঝুনু নবাগত ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছেলেমেয়েরা মেধার স্বাক্ষর রেখে দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়বে, একদিন জাতির নেতৃত্ব দিবে বলে বিশ্বাস করি। তিনি বলেন, আমরা শিক্ষা দেই না, শিক্ষা বিনিময় করি। ইতিমধ্যে আমাদের ছেলেমেয়েরা সহ-শিক্ষার ক্ষেত্রে দেশ ব্যাপী সুনাম বয়ে এনেছে। আমরা স্কুল ক্রিকেটে দেশ সেরা হতে পেরেছি, ক্রিকেট বিভাগীয় পর্যায়ে রানারআপ হয়েছি। রাজশাহী বিভাগের শ্রেষ্ঠ স্কাউট দল আমাদের। খেলাধুলার প্রত্যেকটি ইভেন্টে আমাদের মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা সুনাম অর্জন করেছে। বক্তৃতা পর্ব শেষে প্রধান মন্ত্রী ঘোষিত ৩০ লক্ষ শহীদের স্মরণে ৩০ লক্ষ বৃক্ষ রোপন কর্মসূচীর অংশ হিসেবে পুলিশ সুপার মহোদয় ও কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীগণ কলেজ চত্বরে ৫১ টি ফলজ ও ঔষধি বৃক্ষ রোপন করেন। নবীণবরণের দ্বিতীয় পর্বে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্টিত হয়।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন