বগুড়া সংবাদ ডট কম (শাজাহানপুর প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান) : বগুড়া শাজাহানপুরের নয়মাইল হাটের কাপড় পট্টিতে কাজ না করেই হাট-বাজারের ১% বরাদ্দের ১ লক্ষ ৭৭ হাজার টাকা উত্তোলন করেছে প্রকল্প সভাপতি আড়িয়া ইউপি সদস্য আজিজুল হক। প্রকল্প স্থানে নতুন ইট না বিছায়ে পূর্বের বিছানো পুরাতন ইট উত্তোলন করে পুনরায় প্রতিস্থাপন করে বরাদ্দের সমুদয় অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ এনে গত ২৭ জুন উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন আব্দুর রহমান নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি। কিন্তু অভিযোগ দায়েরের ১৮ দিন পেরিয়ে গেলেও অভিযোগ আমলে নিচ্ছে না প্রশাসন। অপরদিকে পূর্বের প্রকল্পের উপর পুনরায় একই প্রকল্পের বরাদ্দ দেয়ায় উপজেলা প্রকৌশল অফিসের কার্যক্রম নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে।
কাপড় পট্টির ব্যবসায়ীরা জানান, নতুন কোন ইট বিছানো হয়নি। পূর্বের বিছানো পুরাতন ইট তুলে পুনরাই ওই ইট বিছানো হয়েছে।
অভিযোগকারী আব্দুর রহমান বলেন, অভিযোগ দায়েরের ১৮ দিন পেরিয়ে গেলেও অভিযোগ আমলে না নিয়ে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না প্রশাসন। প্রকল্প সভাপতি ইউপি সদস্য আজিজুল হক উপজেলা প্রকৌশল অফিসের সাথে গোপন সমঝোতা করার কারণেই কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। প্রকল্পের উপর পুনরায় প্রকল্প দেয়াই প্রমান করে ইউপি সদস্য আজিজুল হকের সাথে প্রকৌশল অফিসের গোপন যোগসাজস রয়েছে।
প্রকৌশল অফিসের এসও আজিজুল হাকিম জানান, প্রকল্প স্থানে পূর্বে ইট সোলিং করা ছিল তা জানা ছিলো না।
পূর্বের ইট সোলিংয়ের উপর পুনরায় ইট সোলিং প্রকল্প দেয়ার কোন নিয়ম নাই স্বীকার করে উপজেলা প্রকৌশলী ইসমাইল হোসেন জানান, বিষয়টি তার জানা ছিলো না। টাকা উত্তোলনের পর জানতে পেরেছেন। এসও বলতে পারবেন।
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ ফুয়ারা খাতুনের সাথে কথা বলতে রোববার দুপুরে তার সরকারী ফোন নাম্বারে বেশ কয়েক বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন