বগুড়া সংবাদ ডট কম (ধুনট প্রতিনিধি ইমরান হোসেন ইমন) : বগুড়ার ধুনটে গোসাইবাড়ী কেও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির দ্বন্দ্ব চরমে পৌছেছে। প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি একে অপরের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন।
জানাগেছে, ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন আসন্ন। ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল বারী ও চার বারের নির্বাচিত সভাপতি জিয়া শাহীনের অভ্যান্তরীন দ্বন্দ্ব এখন চরমে পৌছেছে। সম্প্রতি বিশ্ব কাপ ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে তাদের দুই জনের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্য রুপ নিয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল বারী তাকে মারধরের অভিযোগ করেছেন সভাপতি জিয়া শাহীনের বিরুদ্ধে।
এবিষয়ে সভাপিত জিয়া শাহীন বলেন, আইসিটি টাকা ব্যাংকে জমা না দিয়ে এবং হাতে টাকা রাখার বিধান না থাকলেও প্রায় লক্ষাধিক টাকা হাতে রাখার নামে বিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাত, ভূয়া বিল ভাউচার, চাকরি জীবনের চার বছরে সভাপতির কাছ থেকে ছুটি না নিয়ে চিকিৎসার জন্য হাসপাতাল ক্লিনিকে ভর্তি থাকা, আত্মীয়র বাড়ীতে বেড়াতে যাওয়ার যাতায়াতের খরচের বিলও অফিস খরচের নামে দাখিল করেছে। এছাড়া তিনি জাতীয় কোন দিবসই বিদ্যালয়ে পালন করেন না। তাই এসব বিষয়ে ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ি তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে গেলে তিনি উল্টো তার বিরুদ্ধেই মিথ্যা মারপিটের নাটক সাজিয়েছেন। এছাড়া তিনি বিদ্যালয়ের ছাত্রীদেরকে রাস্তায় নামিয়ে মানববন্ধন করতেও বাধ্য করেছেন। আগামী ম্যানিজিং কমিটির নির্বাচনে আমি যাতে না আসতে পারি এজন্য প্রধান শিক্ষক আগে থেকেই বিভিন্নভাবে ষড়যন্ত্র করে আসছে।
তবে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল বারী তার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সভাপতি জিয়া শাহীন বিদ্যালয়ের প্রজেক্টর নিয়ে মাঠে খেলা দেখবেন। আমি তাকে কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে প্রজেক্টর নিতে বললে তিনি আমাকে প্রকাশ্যে মারধর করেছেন। মারধরের বিষয়টি আড়াল করতেই তিনি মিথ্যা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ করেছেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন