বগুড়া সংবাদ ডট কম (ইমরান হোসেন ইমন, ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার ধুনটে ভ্রাম্যমান আদালতের রায় অমান্য করে ইছামতি নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে আবারও বালু উত্তোলন করছে ফরহাদ হোসেন নামের এক যুবলীগ নেতা। তবে আদালতের রায় অমান্য করে আবারও বালু উত্তোলন করায় স্থানীয় এলাকাবাসীর মাঝে বিরুপ প্রতিক্রীয়া ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

জানাগেছে, চিকাশী ইউনিয়নের ঝিনাই ছোটচাপড়া গ্রামের ইছামতি নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে নদীর গভীর তলদেশ থেকে বালু উত্তোলন করে আসছিল জয়শিং গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে নিমগাছী ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন সম্পাদক ফরহাদ হোসেন।

গত ২ জুলাই উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জিন্নাত রেহেনা ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ফরহাদ হোসেন ও তার সহযোগি নান্দিয়াপাড়া এলাকার ওমর ফারুককে আটক করে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড ও অনাদায়ে ৭দিনের কারাদন্ড প্রদান করেন। পরে অর্থদন্ডের টাকা পরিশোধ করায় তাদেরকে মুক্তি দেওয়া হয়। এসময় বালু উত্তোলনের ষড়ঞ্জামাদিও ধ্বংস করে ভ্রাম্যমান আদালত। কিন্তু ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানের দু’দিন পর থেকেই আবারও ওই নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন অব্যাহত রেখেছে যুবলীগ নেতা ফরহাদ হোসেন ও তার সহযোগিরা।

ছোট চাপড়া গ্রামের আজিবর রহমান ও মর্জিনা বেগম আক্ষেপ করে বলেন, ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধ করে দিলেও তারা প্রভাবখাটিয়ে আবারও বালু উত্তোলন অব্যাহত রেখেছে। নদীর গভীর তলদেশ থেকে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলনের কারনে ফসলী জমি ও বসতভিটা ভাঙ্গনের কবলে পড়েছে।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাজিয়া সুলতানা বলেন, ভ্রাম্যমান আদালতের রায় অমান্য করে যদি আবারও ওই নদী থেকে বালু উত্তোলন করা হয় তাহলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন