বগুড়া সংবাদ ডট কম (শাজাহানপুর প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান) : বগুড়ার শাজাহানপুরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী পদে চাকুুরি দেওয়ার কথা বলে সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে আব্দুল হাকিম নামে এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেলে বগুড়ার শাজাহানপুর প্রেসক্লাবে ফেরদৌস সরকার (৩০) নামের এক যুবক এই সংবাদ সম্মেলন করেন। ফেরদৌস সরকার উপজেলার খরনা সরকার পাড়া গ্রামের মৃত আফতাব উদ্দিন সরকারের পুত্র।
সংবাদ সম্মেলনে ফেরদৌস সরকার তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, ২০১৫ সালে ‘উত্তর খরনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে’ দপ্তরী পদে চাকুরি দেওয়ার কথা বলে ফেরদৌস সরকারের নিকট থেকে সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক আব্দুল হাকিম। টাকা নেওয়ার পর তিনি ফেরদৌসকে একটি ভূঁয়া নিয়োগপত্র দেন। প্রতারণার বিষয়টি জানাজানি হলে টাকা ফেরত নিতে স্থানীয় ভাবে কয়েক দফা শালিশ দরবার করা হয়। তিনি আরও বলেন, হাকিম মাস্টার একজন মাদক সেবী ও মাদক ব্যবসায়ী। ইতোপূর্বে তিনি ইয়াবাসহ তিনি পুলিশের হাতে আটক হয়েছিলেন। ভ্রাম্যমান আদালতে তার সাজা হয়েছিল। ওই ঘটনায় তিনি চাকুরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত হন। তবুও হাকিম মাস্টারের নৈতিকতার উন্নতি হয়নি। এমতাবস্থায় চাকুরির আশায় জমি বিক্রি করে দেয়া সাড়ে ৬ লাখ টাকা ফেরত পাওয়াসহ আব্দুল হাকিম মাস্টারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বগুড়া জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন ফেরদৌস সরকার। অবশেষে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, বগুড়া জেলা প্রশাসক, বগুড়ার পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট সকলের নিকট আকুল আবেদন জানিয়েছেন ফেরদৌস সরকার।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন