বগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলা প্রকৌশল অফিসে ২১ জুন ঘষের টাকার ভাগ বাটোয়াারা নিয়ে ওই দপ্তরের হিসাব কর্মকর্তা ও পিয়নের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে প্রথম দফার তদন্তে এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তা ঘটনাস্থল উপজেলা প্রকৌশলীর অফিস পরিদর্শন করেছেন। শুক্রবার ওই ঘটনার তদন্তকারী বগুড়া জেলা এলজিইডি দপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমানের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ভবন নির্মান সংক্রান্ত কাজে গিয়েছিলাম। এর ফাঁকে ওই বিষয়ের তদন্তের প্রাথমিক কাজ শুরু করেছি। বিষয়টি তদন্তাধীন থাকায় এ ব্যাপারে আর বেশী কিছু জানাতে অপারগতা প্রকাশ করে বলেন, যা কিছু জানার তা পরবর্তীতে উপজেলা প্রকৌশলীর সাথে যোগাযোগ করে জেনে নিতে পারেন।
ঠিকাদারদের অভিযোগে জানা যায়, আদমদীঘি উপজেলা প্রকৌশলীর অফিসে দীর্ঘ এক যুগেরও বেশী সময় ধরে চাকরি করে আসছেন হিসাব বিভাগের কর্মকর্তা গোলাম মওলা। এ সুযোগে তিনি নানা অজুহাতে ঠিকাদারদের বিল আটকিয়ে রেখে মোটা অংকের উপরি টাকা আয় এবং তা একাই ভোগ করে আসছেন। নিয়ে অফিসের পিয়নের মধ্যে ক্ষোভ দানা বাধে। সেই ক্ষোভ প্রকাশ হয়ে পড়ে ২১ জুন বৃহস্পতিবার। এদিন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ঠিকাদার তার কাজের বিল নেয়ার জন্য হিসাব কর্মকর্তাকে উপরি প্রদান করে। তাৎক্ষনিক এঘটনাটি জেনে ফেলেন আব্দুল জব্বার নামক এক পিয়ন। তিনি ওই হিসাব কর্মকর্তার নিকট সদ্য নেয়া উপরি টাকার ভাগ দাবী করে। এনিয়ে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ দেশের বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। এর প্রেক্ষিতে কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন