বগুড়া সংবাদ ডট কম (ধুনট প্রতিনিধি ইমরান হোসেন ইমন) : বগুড়ার ধুনটে আবারও প্রতিবেশি যুবকের ধর্ষনের শিকার হয়েছে আরো এক স্কুল ছাত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার নিমগাছী ইউনিয়নের ফরিদপুর গ্রামে। এঘটনায় শুক্রবার রাতে ওই স্কুল ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে ফরিদপুর গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে মুকুল হোসেনের (২৫) বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তবে এঘটনার পর থেকেই ধর্ষক মুকুল হোসেন পলাতক রয়েছে।
মামলাসূত্রে জানাগেছে, উপজেলার নিমগাছী ইউনিয়নের ফরিদপুর গ্রামের জনৈক এক ব্যক্তির মেয়ে সোনাহাটা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী। বৃহস্পতিবার রাতে ওই ছাত্রীর পরিবার পাশ্ববর্তী এলাকায় বিয়ের দাওয়াতে যাওয়ায় সে বাড়ীতে একাই ঘুমিয়ে ছিল। এই সুযোগে রাত ১০টায় প্রতিবেশি আব্দুল মজিদের ছেলে মুকুল হোসেন ওই ছাত্রীকে ঘরে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষন করতে থাকে। এসময় ওই ছাত্রীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে ধর্ষক মুকুল হোসেন পালিয়ে যায়। পরে ওই ছাত্রীকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে বাড়ীতেই প্রাথমিক চিকিৎসা দেয় তার স্বজনেরা।
ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খান মো: এরফান জানান, এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে এবং ওই ছাত্রীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য শনিবার সকালে বগুড়ায় পাঠানো হয়েছে। এছাড়া মামলার আসামীকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ১৮ জুন রাত ১১টায় উপজেলার হাঁসাপোটল গ্রামের জনৈক এক ব্যক্তির মেয়ে বিলচাপড়ী দ্বিমুখি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে প্রতিবেশি জহুরুল ইসলামের ছেলে জুবায়ের আহমেদ জুবাইল জোরপূর্বক ধর্ষন করে। এঘটনায় ১৯ জুন রাতে ওই ছাত্রীর ফুপা বাদী হয়ে ধুনট থানায় ধর্ষন মামলা দায়ের করলে পুলিশ ওই রাতেই ধর্ষক জুবায়ের আহমেদ জুবাইলকে গ্রেফতার করে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন