bograsangbad_Logoবগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : সেই সাত সকালে একটি বস্তাবন্দি মৃতদেহ ঘিড়ে শেয়াল-কুকুরের টানাটানি আর এলাকাবাসীর শোকাতুর উপস্থিতি। সবার মুখে আফসোস আর আহাজারির কথা- কোথাকার কোন হতভাগাকে কে বা কারা মেরে বস্তাবন্দি করে এখানে এনে পুঁতে রেখেছে। নেটওয়ার্কের যুগে থানা পুলিশের নিকট খবর পৌঁছাতেও দেরি হয়নি। সারা রাত জেগে পুলিশী কর্ম সেরে সবে ঘুমিয়েছে থানার অফিসার ইনচার্য সহ রাত্রিকালিন দায়ীত্ব পালন করা পুলিশ। কিন্তু বস্তাবন্দি লাশ বের হবার খবর পেলে চোখে কি আর ঘুম থাকে। পড়ি-মরি করে ছুটে গেল পুলিশ। মাটি খুঁড়ে বের করা হল বস্তা। বের করা হল বস্তার ভিতরে থাকা মৃত দেহ। কিন্তু না পুলিশ ও এলাকাবাসীর ভয়ের কিছু নয়; বস্তা থেকে বের হল মৃত বাছুরের অর্ধগলিত দেহ। এতে হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন পুলিশ এবং শোকাতুর এলাকাবাসী। ক্ষনিকের মধ্যে সেখানে উপস্থিত সবার মধ্যে শুরু হল হাস্যরসমুলক আলাপ-আলোচনা। প্রথমে শোক ও ভয় এবং পরে হাস্যরস সৃষ্টি হবার এই ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার নসরতপুর ইউনিয়নের মুরইল বাজার এলাকায়। ঘটনার বিষয়ে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তা সঠিক বলে নিশ্চিত করেছেন আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্য শওকত কবির।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন