বগুড়া সংবাদ ডট কম (সাগর খান, আদমদীঘি প্রতিনিধি ঃ  বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার কুন্দগ্রাম ইউনিয়নের মটপুকুরিয়া গ্রামের একটি সরকারি খাস জলাশয়ের চারি ধার প্রভাবশালীরা ভরাট করে দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। অবৈধ দখলের কারণে জলাশয়টি সংকোচিত হয়ে পড়ছে। সরকার এই জলাশয় থেকে রাজস্ব হারাতে বসেছে। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী বরাবরে অবহিত করা হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার কুন্দগ্রাম ইউনিয়নের মটপুকুরিয়া গ্রামের উত্তরা গাড়ী যাহার সাবেক দাগ নং- ৫৮৭ ১নং খাস খতিয়ান ভুক্ত জলাশয়ের পরিমাণ ১ একর ১৫ শতাংশ। এই চার পাশের বসতিরা সম্প্রতি অবৈধ ভাবে জলাশয়টি দখল করে নিয়ে নতুন করে স্থাপনা নির্মাণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। ওই জলাশয়টি মটপুকুরিয়া গ্রামের মসজিদের নামে লীজ নিয়ে ভোগ দখল করছিল মসজিদ কমিটি।

সম্প্রতি আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া এলাকার মাননীয় সংসদ সদস্য এ্যাড. নূরুল ইসলাম তালুকদার সরকারি বরাদ্দ থেকে ওই জলাশয়টি পুনঃ খনন করার জন্য একটি প্রজেক্ট হাতে নেয়। এর পাশাপাশি স্থানীয় কুন্দগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান পরিষদ কর্তৃক একটি বরাদ্দ দিয়ে ওই গ্রামের লোকজনের মসজিদে যাতায়াতের সুবিধার জন্য জলাশয়টির পশ্চিম পার্শ্বে ভেঙে যাওয়া রাস্তা পুনঃ নির্মাণ করার ব্যবস্থা করে।

এরপর ইউনিয়ন পরিষদের সার্ভেয়ার দ্বারা মাপ যোগ করে রাস্তার কাজের অনুমতি প্রদান করে। এই সুযোগে জলাশয়ের চার পাশের বসতিরা সরকারি আইনের তোয়াক্কা না করে যে যার মত করে ইট দিয়ে সীমানা প্রাচীর, ঘাট নির্মাণ, আবাসিক ঘর বাড়ি নির্মাণ সহ বাঁশের বেড়া দিয়ে ভরাট করে দখল করে নিচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদেকুর রহমানের সাথে কথা বলা হলে তিনি জানান, বিষয়টি লিখিত ভাবে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে আমি দ্রুত সরজমিন তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা ভূমি অফিসকে নির্দেশ দিয়েছি।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন