বগুড়া সংবাদ ডট কম (রাহেনূর ইসলাম স্বাধীন, সারিয়াকান্দি প্রতিনিধি: বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে মেয়েকে হত্যার পর মা আত্মহত্যা’র ঘটনা ঘটেছে। রবিবার বিকালে উপজেলার চন্দনবাইশা ইউনিয়নের ঘুঘুমারি উত্তরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যায় পুলিশ লাশ দুইটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার দুর্গম এই এলাকা ঘুঘুমারি গ্রামের তারাজুল ফকিরের স্ত্রী নাদিয়া বেগম তার শাশুড়ির সঙ্গে থাকতেন। তারাজুল রাজধানীর একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। রবিবার বিকালে তার দুই বছরের শিশু কন্যা তানজিলা আকতার বেড়াতে যেতে চাইলে নাদিয়া রাজী হননি। এতে মেয়ে কান্নাকাটি শুরু করলে রেগে গিয়ে নাদিয়া শিশুটির মুখে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করেন। পরে সে নিজে ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় শাড়ি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। এ সময় নাদিয়ার শাশুড়ি বাড়িতে ছিলেন না।
এবিষয়ে চন্দনবাইশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. শাহাদৎ হোসেন দুলাল বলেন, মেয়েটি মানসিক রোগী ছিল। আমরা গ্রামের লোকেরা বিষয়টি পুলিশকে অবগত করেছি।
সারিয়াকান্দি থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. এনায়েতুল রহমান বলেন, ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে শজিমেকে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে মেয়েটিকে তার মা হত্যা করেছে। তদন্ত পর সম্পূর্ণটা বলা যাবে।
Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন