বগুড়া সংবাদ ডট কম (ইমরান হোসেন ইমন, ধুনট থেকে) : প্রায় সব এলাকাতেই যাতায়াতের রাস্তা নিয়ে বেশিরভাগ সময় প্রতিবেশির সাথে শত্রুতার সৃষ্টি হয়। কিন্তু প্রতিবেশিকে ভোগান্তিতে ফেলতে কাজিপুর উপজেলার হরিনাথপুর গ্রামের তাপস সরকার ও তার পরিবার নিয়েছে ভিন্ন কৌশল। পায়ে হাঁটার একমাত্র চলাচলের রাস্তার মাটি কেটে সৃষ্টি করেছে জলাবদ্ধতা। শুধু তাই নয় সেই জলাবদ্ধ রাস্তায় ফেলে রাখেন কাঁচের টুকরো। এতে আহত হতে হয় দুটি দিনমজুর পরিবারের সদস্যদের। এমন ঘটনা নিত্যদিনের হলেও কোন বিচার পাচ্ছেন না দুটি অহসায় পরিবার।
জানাগেছে, কাজিপুর উপজেলার সোনামুখি ইউনিয়নের হরিনাথপুর গ্রামের সর্গীয় মঙ্গল চন্দ্র সরকারের ছেলে জীবন সাহা ও সর্গীয় নারায়ন চন্দ্র সাহার ছেলে রাজ কুমার সাহা তাদের পৈত্রিক সম্পতিতে বসবাস করে আসছে। তাদের বসতবাড়ীর সামনেই ফল ব্যবসায়ী তাপস চন্দ্র সরকারের বসতবাড়ী। তার বাড়ীর পাশ দিয়েই দিনমজুর জীবন সাহা ও রাজকুমার সাহার পরিবারের লোকজন যাতায়াত করে। কিন্তু দীর্ঘদিন যাবত তাপস চন্দ্র সরকার ও তার স্ত্রী বুলু রানী ও তার ছেলে প্রতিবেশির যাতায়াতের একমাত্র পায়ে হাঁটার রাস্তা বন্ধ করতে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে আসছে। সম্প্রতি তাপস চন্দ্র সরকার ও তার পরিবারের লোকজন ওই রাস্তার মাটি কেটে গর্তের সৃষ্টি করেছেন। এতে বৃষ্টির পানিতে জলাবন্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। সেই জলাবদ্ধ রাস্তায় ফেলে রাখছেন কাঁচের টুকরো।
দিনমজুর জীবন সাহা ও রাজ কুমার সাহা জানান, প্রতিবেশি তাপস চন্দ্র সরকার ও তার পরিবারের লোকজন আমাদের একমাত্রা যাতায়াতের পথ বন্ধ করে দিচ্ছে। তারা রাস্তার পানির মধ্যে কাঁচের টুকরো ফেলে রাখে। এতে ওই রাস্তায় যাতায়াত করলে পায়ে কাঁচের টুকরো বিধে গিয়ে তাদেরকে রক্তাক্ত হতে হয়। এবিষয়ে স্থানীয় মাতব্বরদের কাছে বিচার চেয়েও কোন প্রতিকার পাননি। তাই তারা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন