বগুড়া সংবাদ ডট কম (মহাস্থান প্রতিনিধিঃ) বগুড়ার শিবগঞ্জের এক যুবকের সাথে রংপুরের জনৈক এক গৃহ বধুর মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক চাকুরী দেওয়ার নাম করে রাতভর ধর্ষণ অবশেষে অপর তিন যুবক আটক।

জানাগেছে, বগুড়ার শিবগঞ্জের সংসারদিঘী গ্রামের শ্রী বুনার লালের পুত্র পবিত্র রংপুর জেলার মিঠাপুকুর থানার ১১ নং বালুয়া ইউনিয়নের মোস্তাফিজার রহমানের স্ত্রী এক সন্তানের জননী শান্তনা বেগমের সাথে মোবাইলে প্রেমে সম্পর্কের সূত্রধরে চাকুরী দেওয়ার নাম করে পবিত্র গত ২৯ মে তার এলাকায় ডেকে নিয়ে এসে তার বন্ধু শিপন ও কাওসার কে সঙ্গে নিয়ে রাতভর শান্তনাকে ধর্ষণ করে পরে দিন ৩০ মে শান্তনা কে বলে যে আনোওয়ারের সিএনজিতে প্রদিপ ও সৌরভের সংগে যাও তোমার চাকুরী ঠিক হয়েছে এদিকে সৌরব, প্রদিপ ও আনোয়ার শান্তনাকে বগুড়ায় নিয়ে এসে আবারও বুড়িগঞ্জের দিকে অসৎ উদ্দ্যেশে নিয়ে আসার সময় রাত অনুমান ৯ টায় বগুড়া সদরের গোকুল ইউনিয়নের চাঁদমুহা বন্দরে পৌছিলে শান্তনা তাদের অসৎ উদ্দ্যেশ্য বুঝতে পেরে চিৎকার দেয়। এ ঘটনায় এলাকার লোকজন ছুটে এসে তাদের কে আটক করে ।

এ ব্যাপারে শান্তনার সাথে কথা বললে সে জানায়, পবিত্র ও তার দুই বন্ধু মিলে চাকুরী দেওয়ার নাম করে ২৯ মে তারিখে আমাকে ডেকে নিয়ে এসে রাতভর ধর্ষণ করে তার পরে দিন অপর তিন বন্ধুর হাতে তুলে দেন আমি এর সুষ্ট বিচার চাই। স্থানীয় লোক জন গোকুল ইউপি চেয়ারম্যান সওকাদুল ইসলাম সরকার সবুজকে সংবাদ দেয়।সংবাদ পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যান সদর থানা পুলিশকে সংবাদ দিয়ে থানার এস আই জাহাঙ্গীর সংগীয় ফোর্স নিয়ে তাদেরকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় এবং রাতেই ছেড়ে দেয়।

এ ব্যাপারে থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, ইন্সপেক্টর (তদন্ত) কামরুজ্জামানের সাথে কথা বলতে বলেন। তিনি জানান তাদের কে স্ব স্ব অভিভাকের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবারে অভিভাবক সহ থানায় হাজির হতে বলা হয়েছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন