বগুড়া সংবাদ ডট কম : মায়ানমারে নির্বিচারে মুসলমানদের গণহত্যা-নির্যাতনের প্রতিবাদ এবং দেশ ছেড়ে আসা রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেয়ার দাবীতে কেন্দ্র ঘোষিত শুক্রবারের মানববন্ধন কর্মসূচি পালনে বাধা দিয়েছে পুলিশ। পুলিশ সকালেই নবাবাড়ীস্থ জেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে কাটা তারের বেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করে দেয় জেলা বিএনপির প্রধান ফটক। এ কারনে কোন নেতাকর্মীই কার্যালয়ের ভেতরে প্রবেশ করতে পারেনি। এমনকি শহরের প্রতিটি প্রবেশ পথে তল্লাশী চৌকি বসিয়ে জনসাধারনের প্রবেশাধিকারে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়।
বিএনপির মানববন্ধন কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে শুক্রবার সকাল থেকেই শহরে নিরাপত্তা জোরদার করে পুলিশ। শহরের নবাববাড়ী সড়কের দুই প্রবেশমুখ ফতেহ আলী মোড়ের সামনে এবং সদর পুলিশ ফাঁড়ির সামনের রাস্তায় কাঁটাতারের ব্যারিকেড দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয় সবধরনের যানবাহনের চলাচল। সার্কিট হাউজের সামনে নবাববাড়ী সড়কের প্রবেশ মুখে রায়টকার ও জলকামান মোতায়েন করা হয়। পুরো নবাববাড়ী সড়ক ছাড়াও মোতায়েন করা হয় বিপুল সংখ্যক পুলিশ। এছাড়াও শহরে পুলিশের বিশেষ টীমের টহল জোরদার করা হয়। পরে শহরের সেন্ট্রাল মসজিদে বিশেষ দোয়ার আয়োজন করে বিএনপি। এখানেও পুলিশ মসজিদের প্রধান ফটক কর্ডন করে রাখে।
জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম পুলিশের এই ভূমিকাকে ন্যাক্কারজনক দাবী করে বলেন, মায়ানমারে মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে। বিএনপি সেই ঘটনার শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ জানাতে চেয়েছিল। কিন্তু সরকার কর্মসূচি পালনে বাধা দিয়ে ঘৃণ্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো। তিনি আরও জানান, পুলিশী বাধায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করতে না পারায় জুমআর নামাজ শেষে বায়তুর রহমান সেন্ট্রাল মসজিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
বগুড়া সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আসলাম আলী জানান, কর্মসূচি পালনে কাউকে বাধা দেয়া হয়নি। বিএনপি মানববন্ধন করতে আসেনি। নিরাপত্তার স্বার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন