বগুড়া সংবাদ ডটকম (সাগর খান,আদমদীঘি প্রতিনিধি ঃ) বগুড়ার আদমদীঘিতে যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে মারপিটে নির্যাতনের ঘটনায় স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় স্বামী এরশাদ আলী (৪০) নামের এক সন্তানের জনক কে পুলিশ গ্রেফতার করে শনিবার বগুড়া আদালতে প্রেরন করেছে।

জানা যায়, আদমদীঘির ডহরপুর গ্রামের জসিম উদ্দীনের ছেলের সাথে একই উপজেলার নশরতপুরের হলুদঘড় গ্রামের ফেরদৌস আকন্দের কন্যা লিপি বেগমের সাথে ২০০১ সালে মুসলিম শরিয়ত মোতাবেক বিবাহ হয়। কন্যার সুখের জন্য বিবাহের সময় ও পরে ফেরদৌস আলী তার জামাই এরশাদ কে টিভি ফ্রিজ, স্বর্ণলংকার, নগদ টাকা সহ সোয়া দুই লক্ষ টাকার উপঢৌকন হিসাবে প্রদান করে। এর পর বিভিন্ন সময় লিপি বেগমের কাছে তার স্বামী আরো দুই লাখ টাকা যৌতুক হিসেবে দাবী করে নির্যাতন করতো।

গত ১৬ এপ্রিল বিকেলে লিপির কাছে পুনরায় দুই লাখ টাকা যৌতুক হিসেবে দাবী করলে লিপি টাকা দিতে অস্বীকার করলে স্বামী এরশাদ ও তার সহযোগী মিলে হত্যার উদ্দ্যেশে লিপি কে মারপিটে জখম করে আহত করে। স্থানীয়রা উদ্ধার করে আদমদীঘি উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করায়। এ ঘটনায় লিপি বেগম বাদী হয়ে বগুড়া নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলটি আমলে নিয়ে রেকর্ডভুক্ত করার জন্য ওসি আদমদীঘিকে নির্দেশ দিলে গত শুক্রবার মামলাটি রেকর্ড করেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন