বগুড়া সংবাদ ডটকম (শেরপুর প্রতিনিধি, কামাল আহমেদ): বগুড়ার শেরপুরের তেঘড়ী গ্রামে কাজের মজুরী দাবি করায় ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্র শিশু নিরব পাল (৯) কে বেদম মারপিট ও সিগারেটের আগুন দিয়ে ছ্যাকা দেওয়ার ঘটনায় গত বুধবার রাতে শেরপুর থানা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
অভিযোগসূত্রে জানা যায়, উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের করিমপুর গ্রামের গিরেন্দ্র নাথ সরকারের ছেলে অসিম সরকার পাশের তেঘড়ী গ্রামের চিত্তরঞ্জন পালের ছেলে তেঘরি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্র নিরব কে তার দোকানে টাকার বিনিময়ে পানি এনে দিতে বলে। শিশুটি তার কথা মত ৬ ঢোপ পানি এনে দেয়। পরে নিরব স্কুল শেষে বাড়িতে এসে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে সেই টাকা চাইতে গেলে তাকে বেদম মারপিট করে এবং গালে সিগারেটের ছ্যাকা দেয়। নিরবের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা করান। মারপিটের কারনে শিশুটি পরের দিন প্রথম সাময়িক পরীক্ষা দিতে পারেনি বলে ওই স্কুলের সহকারি শিক্ষক জানান।
এ ঘটনায় ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাধন চন্দ্র ও গ্রামের মাতব্বর মনোরঞ্জন, সন্তেস, আব্দুর রশিদের কাছে বিচার চায়। তারা বিচার দেয়ার আশ্বাস দিলেও কোন বিচার করেনি। পরে বুধবার রাতে নিরবের মা অর্চনা রানী বাদি হয়ে শেরপুর থানা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত অসিম বলেন, আমি তাকে কয়েকটি চর থাপ্পর মেরেছি কিন্তু সিগারেটের ছ্যাকা দেইনি।
এ ব্যাপারে নিরবের মা বলেন, গ্রামে বিচার না পেয়ে শেরপুর থানায় অভিযোগ দিয়েছিলাম কিন্তু গতকাল শনিবার পর্যন্ত থানা থেকে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয় নাই। উল্টো পুলিশ বলছে ওটা সিগারেটের ছ্যাকা নয় আমের কষের ঘা।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মোঃ সিরাজুল ইসলাম বলেন, তদন্ত করার জন্য থানা পুলিশকে বলা হয়েছে। সত্যতা পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন