বগুড়া সংবাদ ডট কম ( নামুজা প্রতিনিধি আনোয়ার হোসেন)ঃ বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার মাঝিহট্ট ইউপির খেউনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নানা সমস্যায় জর্জরিত। গত ২৫এপ্রিল ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফার নিকট জানা যায়, ১৯০০ সালে ৩৯ শতাংশ জায়গা নিয়ে স্থাপিত হয় এই বিদ্যালয়টি। আশ-পাশের খেউনী, নারায়নপুর ও শৌলা ৩টি গ্রামের ছেলে-মেয়েরা এই বিদ্যালয়ে পড়াশুনা করতে আসে। বর্তমান শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৬৪ জন। শিক্ষক সংখ্যা ৩ জন, তার মধ্যে একজন সরকারি ট্রেনিং কাজে থাকায় বর্তমান ২জন শিক্ষক দ্বারা চলছে পাঠদান। বিগত ২০০৭ সাল থেকে বর্তমান ২০১৮ সাল পর্যন্ত ২/৩ জন শিক্ষক দ্বারা চলছে বিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম। তিনি আরোও জানান, ২০১৩ সাল থেকে এই বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ ফাঁকা থাকায় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দিয়ে চলছে বিদ্যালয়টি। এতে করে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি গঠন করতে দেখা গেছে নানা জটিলতা। এছাড়াও সরকারি বিভিন্ন কাজে উপজেলা শিক্ষা অফিসসহ সরকারি কাজে নানা রকমের সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। যে সময় বাংলাদেশ সরকার দেশকে ডিজিটালাইজ করার প্রত্যয় নিয়ে কাজ করছে। সে ক্ষেত্রে এই বিদ্যালযে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা না থাকায় শিক্ষার্থীরা ডিজিটাল যুগের সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। বিদ্যালয়ের দুই পার্শ্বে বাঁশ ঝার এক পার্শ্বে পুকুর থাকলেও নিরাপত্তা প্রাচীর না থাকায় ছোট সোনামনিদের মনে ভীতি সঞ্চার হয়। এছাড়াও বিদ্যালয়ে খেলার ভালো একটি মাঠ নাই। বিগত ২০১৭ সালে বিদ্যালয় থেকে ৩০জন শিক্ষার্থী পিএসপি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে। এদের পাশের হার ছিল শতভাগ এবং সাধারণ গ্রেডে ২ জন শিক্ষার্থী বৃত্তি লাভ করেন। সবমিলিয়ে ১১৮বছরের পুরাতন খেউনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নানা সমস্যায় জর্জরিত। উক্ত সমস্যা সমাধানের জন্য সংশি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন শিক্ষা অনুরাগী সচেতন মহল।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন