বগুড়া সংবাদ ডট কমঃ ফিরোজ কামাল ফারুকঃ বগুড়ার নন্দীগ্রামে বোরো ধান কাটা শুরু হয়েছে। চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে নন্দীগ্রাম উপজেলার চলতি মৌসুমে একটি পৌরসভাসহ উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের ২০ হাজার ৪৪৪ হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যার উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ১ লাখ ১৯ হাজার ১১৯ মেট্রিকটন। নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে বলে মনে করছেন উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর। পাশাপাশি ধানের ফলন আশানূরূপ হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে বলে এলাকা ঘুরে জানা গেছে। এত আনন্দের মাঝেও কৃষকের শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে, ন্যায্য মূল্যে ধান বিক্রি করতে না পারলে যে তাদের লোকশান গুনতে হবে।
উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, কৃষকদের সবচেয়ে ব্যয় বহুল ঝুকিপূর্ণ আবাদ হচ্ছে ইরি-বোরো চাষ। বোরো ধান দেশের খাদ্য চাহিদা পুরুনের প্রধান ভূমিকা রাখে। তাই এবারো কৃষকরা মাঠের ফসলি জমির প্রতি যত্নশীল হয়েছিল। সে কারণে ভালো ভাবে ফসল ঘরে তুলতে পারলে লক্ষ্য মাত্রার চেয়ে বেশী ধান পাবে।
এপ্রসঙ্গে পৌর শহরের পূর্বপাড়ার শহিদুল ইসলাম জানান, প্রতিমণ মিনিকেট ৮৫০ থেকে ৯০০ টাকা দরে বিক্রয় হচ্ছে। তাছাড়া অন্যান্য জাতের ধান কাটতে এখনও এক থেকে দুই সপ্তাহ সপ্তাহ সময় লাগবে। এদিকে কৃষকরা ন্যায্য দাম পাওয়া নিয়ে হতাশায় রয়েছেন।
এপ্রসঙ্গে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মুহাম্মদ মশিদুল হক জানান, চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে একটি পৌরসভাসহ উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের ২০ হাজার ৪৪৪ হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। বর্তমান আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় বোরো ধানের সার্বিক অবস্থা ভাল রয়েছে। তাই এবছরও ধানের ভাল ফলন হবে। তবে আগামী সপ্তাহ থেকে পুরো উপজেলায় ধান কাটা শুরু হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন