বগুড়া সংবাদ ডট কম(সারিয়াকান্দি প্রতিনিধি রাহেনূর ইসলাম স্বাধীন): গ্রাম পর্যায়ে বসবাসরত সাধারন মানুষকে অপুষ্টি ও স্বাস্থ্যের বিষয়ে সচেতন করা এবং মানুষকে অপুষ্টি সমস্যা থেকে মুক্ত করতে কাজ করছে উজ্জিবিত পুষ্টি গ্রাম প্রকল্প। বগুড়ায় সারিয়াকান্দি উপজেলায় সদর ইউনিয়নের দিঘলকান্দি, অন্তারপাড়া, পারতিতপরল এলাকায় ৩টি পুষ্টি গ্রামের মাধ্যেমে ৪০টি করে মোট ১২০টি পরিবারের সহায়ক হয়েছে এই প্রকল্প। এর মাধ্যোমে স্থানীয় পর্যায়ে বিভিন্ন পুষ্টিকর চারা রোপন, শাক সবজি ও ফলমুলের বীজ বিতরন, সাধারন মানুষকে নিরাপদ খাবার পানি এবং স্বাস্থ্য সম্মত স্যানিটেশন ব্যবস্থায় অভ্যস্থ করন ও সচেতন করা ছাড়াও টিকা নিশ্চিত করণ, ঝড়েপড়া শিশুদের কে নিয়মিত বিদ্যালয় মূখী করার মতো গুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম রয়েছে এই প্রকল্পটিতে। পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) সংস্থার সহযোগীতায় প্রায় ১৬ লক্ষ টাকা ব্যায়ে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছেন গ্রাম উন্নয়ন কর্ম (গাক)। স্থানীয় কিশোরীদের নিয়ে কিশোরী ক্লাবের মাধ্যেমে বাল্য বিবাহ রোধ করার লক্ষে এবং এই প্রকল্পটি মনিটরিং ও পরিচালনার মাধ্যমে উজ্জিবিত করা হচ্ছে কিশোরী ও সাধারন মানুষের মানসিক চেতনাকে। এই রকম প্রকল্প প্রত্যোকটা গ্রামে বাস্তবায়ন করতে পারলে অপুষ্টি সমস্যা সহ বাল্য বিবাহ রোধ এবং মানুষকে স্বাস্থ্য সম্পর্কে সম্পূর্ণরুপে সচেতন করা সম্ভব বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। প্রকল্প কো-অর্ডিনেটর (পিসি) বায়েজিদ ইসলাম এক সাক্ষাৎকারে বলেন- আমরা চেষ্টা করছি তৃনমূল পর্যায়ে এই প্রকল্পটির মাধ্যমে মানুষকে সচেতন করতে। সাধারন মানুষ যাতেকরে নিজ বসত বাড়ির উঠানে কিটনাশক মুক্ত শাক সবজি চাষ করতে পারে ও দুষনমুক্ত পরিবেশে বসবাস করতে পারে এবং হাঁস, মুরগি, গরু/ছাগল, পাখি সহ গবাদিপশু পালনে উৎসাহিত করতে কাজ করছেন আমাদের এই প্রকল্প। গাক’র জনসংযোগ কর্মকর্তা ফরহাদ শাহী এই প্রকল্পের বরাতদিয়ে বলেন- আগামীতে আরও বড় পরিসরে উপজেলা পর্যায়ে সকল গ্রামে মানুষকে সচেতনকরা ও পুষ্টির কমতি থেকে মানুষ যাতে বেরিয়ে আসতে পারে এরকম পরিকল্পনা আমরা গ্রহন করবো।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন