বগুড়া সংবাদ ডটকম  (জিয়াউর রহমান, শাজাহানপুর  প্রতিনিধি ঃ) বগুড়ার শাজাহানপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের মারপিটে শিশু সহ ২জন আহত হয়েছে। একই সাথে জমিতে লাগানো দেড় শতাধিক কলাগাছ কর্তন ও ১টি টিনের ঘর ভাংচুর করেছে প্রতিপক্ষের ভাড়া করা লোকজন। শনিবার দুপুরে উপজেলার ভান্ডারপাইকা উত্তরপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।
ভান্ডারপাইকা উত্তরপাড়া গ্রামে মৃত সিমান সরদারের পুত্র চাঁন মিয়া সরদার জানান, ভান্ডারপাইকা মৌজার তার ১২ বিঘা পৈত্রিক সম্পত্তির মধ্যে ৪১ শতাংশ ছাড়া বাকি জমি একই গ্রামের মৃত হামেদ আলীর ৩ পুত্র জালাল, জলিল ও সালাম ভূয়া দলিল সৃষ্টি করে দীর্ঘদিন যাবত জবর-দখল করে ভোগ করে আসছে। এঘটনায় আদালতে মামলা বিচারাধিন রয়েছে। ওই ৪১ শতাংশ জমিও জবর-দখল করতে মাঝে মধ্যেই হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে তারা। এমতাবস্থায় শনিবার দুপুরে অতর্কিত ভাবে তারা ভাড়া করা লোকজন নিয়ে ধারালো অস্ত্র-স্বস্ত্রে স্বজ্জিত হয়ে এসে ১১ শতক জমিতে লাগানো দেড় শতাধিক কলাগাছ কর্তন করে এবং ১টি টিনের ঘর ভাংচুর করে। বাঁধা দিতে গেলে তারা মারপিট করে এবং ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ৩ বছর বয়সী শিশু মিনহাজের মাথা কেটে যায় ও মিনহাজের মা চাম্পা বেগম আহত হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় শিশু মিনহাজকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। শিশু মিনহাজের নানী নুর জাহান জানান, এঘটনায় শনিবার সন্ধায় শাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে মামলা নেয়নি পুলিশ।
মৃত হামেদ আলীর পুত্র আব্দুল জলিল ওই জমি কবলামূলে মালিক দাবী করে বলেন, কাউকে মারপিট করা হয়নি। নিজের জমিতেই গাছ লাগাতে যাওয়া হয়েছিল। ওরাই হামলা চালিয়েছে।
থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, অভিযোগ নেয়া হয়নি এটা ঠিক নয়। তারাতো অভিযোগ লিখে নিয়ে আসেনি। থানায় অভিযোগ কে লিখে দেবে। অভিযোগ লিখে নিয়ে এলে অবশ্যই তা গ্রহন করা হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন