বগুড়া সংবাদ ডট কম(মহাস্থান প্রতিনিধি এস আই সুমন): এসকেএস এর এনজিও-র কর্মকর্তা ও সংস্থার অনিয়মের বিরুদ্ধে সংবাদ সন্মেলনে মহাস্থান প্রেস ক্লাবের লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার মোকামতলা শাখা ব্যবস্থাপক আ: খালেক। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত ১৭/১০/২০০৭ ইং সালে এসকেএস সংস্থায় যোগদান করে সুনামের সাথে বিভিন্ন শাখায় শাখা ব্যবস্থাপক হিসাবে চাকুরী করে আসিতেছি। সর্বশেষ মোকামতলা শাখায় যোগদান করে ঋণ খেলাপী এক সদস্যকে বিনিয়োগ দিতে আমি অস্বীকৃতি জানালে প্রধান শাখার কর্মকর্তাদের সুপারিশে তাকে পুনরায় তিন লক্ষ পঞ্চার হাজার টাকা বিনিয়োগ প্রদান করার সুপারিশ করা হয়। বিনিয়োগ গ্রহনের পর সে আবারো খেলাপি হলে অফিস কর্তৃপক্ষ আমার বেতন থেকে ঐ সদস্যর নাসে বিভিন্ন মাসে আমার বেতন থেকে ১৯৬৪২৭ টাকা কেটে নিলে আমি বিভিন্ন সময় প্রতিবাদ করতে থাকি। তারা আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে পরিচালক খোকন কুমার ও সম্বনয়কারী হাফিজের মিথ্যা কথা মত আমাকে বলে যে, তোমার চাকুরী নেই। তৎক্ষনাত আমি বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানালে তারাও তাদের কথামত একই কথা বলে। তখন আমি বলি যে, আমার সংস্থার কাছে পাওনা পিএফ- ৭০০৬৫, পিএফ সংস্থার – ৭০০৬৫, এস ডাব্লু এস-১৪৫০০, গ্রাচুয়েটি-৪৮০২০, জামানত-৮০০০, কিস্তি বাবদ জমা- ৯০১২০ টাকা। মোট ৩০,০৭৭৭ টাকা ফেরত দেওয়া হোক। আমার টাকা ফেরত না দিয়ে তারা বিভিন্ন তালবাহানা করতে থাকলে বিষয়টি জাতীয় সংসদের মাননীয় ডেপুটি স্পিকার আলহাজ্ব ফজলে রাব্বি মিয়া বরাবর একটি আবেদন দিলে তিনিও আমার পাওনা টাকা ফিরত দিতে বলেন। তাঁর কথাও তারা না শুনে আমাকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করতে থাকে। বিষয়টি স্থানীয় প্রসাশন ও এনজিও ব্যুরোর কর্মকর্তাদের সহযোগীতা কামনা করছি এবং আমার পরিবারের দূর্দিনে সকলকে সহযোগীতা করার অনুরোধ করছি।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন