বগুড়া সংবাদ ডটকম (জিয়াউর রহমান, শাজাহানপুর ) প্রতিনিধি: বগুড়ার শাজাহানপুরে একই সময়ে দু’পক্ষের পাল্টাপাল্টি সমাবেশে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়ায় সংঘর্ষের আশংকায় উভয় পক্ষের সমাবেশ বন্ধ করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। তবে সমাবেশ বন্ধ হলেও ওই এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় রাণীরহাট বন্দরে আশেকপুর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে সন্ত্রাস, মাদক, চাঁদাবাজি ও নৈরাজ্যের প্রতিবাদে এক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। অপরদিকে ওই সমাবেশ থেকে মাত্র ১০০ গজ দক্ষিণে বেলা সাড়ে ৩টায় জাতীয় শ্রমিকলীগ শাবরুল বন্দর কমিটির সদস্য সাগর হোসেনের নামে মিথ্যা ও হয়রানি মূলক চাঁদাবাজি মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে আশেকপুর ইউনিয়ন শ্রমিকলীগ। যখন পাশাপাশি দু’টি সমাবেশের প্রস্তুতি চলছিল তখন বন্দরের সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
খবর পেয়ে পুলিশকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো: কামরুজ্জামান। এলাকার শান্তি-শৃংখলা রক্ষার স্বার্থে তিনি উভয় পক্ষকে সভা-সমাবেশ বন্ধ রাখতে অনুরোধ করেন। তাঁর অনুরোধে উভয় পক্ষ তাদের কর্মসূচি গুটিয়ে নেন। তবে সভা-সমাবেশ গুটিয়ে নিলেও উভয় পক্ষের মধ্যে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করায় বন্দরের সাধারণ মানুষ আতঙ্কে রয়েছেন।
আশেকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: ফিরোজ আলম জানান, সন্ত্রাস, মাদক, চাঁদাবাজি ও নৈরাজ্য বিরোধী সমাবেশ করে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। অপরদিকে প্রতিপক্ষের লোকজন চাঁদাবাজি মামলার আসামী সাগর’কে প্রশ্রয় দেয়ার পাঁয়তারা করতে পাল্টা প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছে। এমনকি ওই সমাবেশের আশেপাশে মামলার আসামী সাগর হোসেন ঘোরাফেরা করলেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয়নি বলেও তিনি মন্তব্য করেন। ফলে মাদক ব্যবসায়ীসহ অপরাধীরা আরও বেপরোয়া হয়ে উঠবে।
অপরদিকে জাতীয় শ্রমিকলীগ আশেকপুর ইউনিয়ন শাখার সভাপতি ইউনুস আলী খান জানান, শ্রমিকলীগ নেতা সাগর হোসেনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির একটি মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলা করা হয়েছে। ওই মামলা প্রত্যাহারের জন্য তারা প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করেছিলেন। কিন্তু প্রশাসনের অনুরোধে তারা কর্মসূচি বন্ধ করেছেন।
শাজাহানপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: কামরুজ্জামান সাংবাদিকদেরকে জানান, দু’পক্ষের পাশাপাশি সমাবেশের আয়োজনে উত্তেজনা এবং আইন-শৃংখলা ভঙ্গের আশংকা দেখা দিয়েছে এমন সংবাদে ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষকে নিজ নিজ কর্মসূচি বন্ধ করতে অনুরোধ করা হয়েছে এবং তারা সাথে সাথে কর্মসূচি বন্ধ করে দিয়েছেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন