বগুড়া সংবাদ ডট কম(শাজাহানপুর  প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান) বগুড়ার শাজাহানপুরে পৃথক দু’টি সড়ক দূর্ঘটনায় মহিলাসহ নিহত হয়েছে ৪জন এবং আহত হয়েছে ২জন।  বিকেল সোয়া ৪টার দিকে উপজেলার বেতগাড়ী বটতলা এলাকায় ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে এবং একই দিন সকাল পৌনে ৭টার দিকে বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের উপজেলার বয়ড়াদিঘী সিনজেন্টা ঔষধ কোম্পানীর সামনে এই পৃথক দু’টি সড়ক দূর্ঘাটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, কাহালু উপজেলার ভালসুন গ্রামের বাবুল প্রামানিকেরা স্ত্রী আছিয়া বেগম (৪০), সুজাবাদ তামিম কেয়ার ফিড কোম্পানীর ইঞ্জিনিয়ার সাইদুর রহমান (৩৮), নাটোরের সিংড়া উপজেলার ছোট চৌগ্রামের মৃত মহিন্দ্র নাথ হালদারের পুত্র গনেষ চন্দ্র হালদার (৪৫) এবং বগুড়া সদরের শশিবদনি গ্রামের মৃত সালামত আলী সরকারের পুত্র রমজান আলী সরকার (৬৪)। আহতরা হলেন, নিহত আছিয়া বেগমের স্বামী বাবুল প্রামানিক ও নিহত রমজান আলী সরকারের পুত্র আইজুল। পুলিশ দূর্ঘটনা কবলিত ৩টি যানবাহন আটক করেছে।
থানার এসআই রাম জীবন ভৌমিক জানান, রোববার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে উপজেলার বেতগাড়ী বটতলা এলাকায় ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে দু’টি মটরসাইকেল পরস্পরের সাথে ধাক্কা লেগে উভয় মটরসাইকেলের ৩জন আরোহী মহাসড়কে পড়ে যায়। এসময় শেরপুরগামী যাত্রীবাহি করতোয়া গেটলক বাসের (ঢাকা মেটো-চ-০২-২১৮৪) চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই কাহালু উপজেলার ভালসুন গ্রামের বাবুল প্রামানিকেরা স্ত্রী আছিয়া বেগম (৪০) ও সুজাবাদ তামিম কেয়ার ফিড কোম্পানীর ইঞ্জিনিয়ার সাইদুর রহমান (৩৮) মারা যায়। গুরুতর আহত হয় নিহত আছিয়া বেগমের স্বামী বাবুল প্রামানিক। অপরদিকে কুন্দারহাট হাইওয়ে পুলিশের এসআই কাজল কুমার নন্দি জানান, রোববার সকাল পৌনে ৭টার দিকে বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের উপজেলার বয়ড়াদিঘী সিনজেন্টা ঔষধ কোম্পানীর সামনে নাটোরগামী পাথর বোঝাই ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ট-১৪-৯৮৩৮) ও বগুড়াগামী সিএনজি চালিত অটোটেম্পু (বগুড়া-থ-১১-৩৬২২) মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এসময় ২জন অটোটেম্পু যাত্রী নিহত হয় এবং চালক আহত হয়। আহত চালককে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দূর্ঘটনা কবলিত যানবাহন দু’টি আটক রয়েছে। নিহত ব্যক্তির মধ্যে রমজান আলী সরকার একজন কাঁচা তরিতরকারী ব্যবসায়ী। ছেলের অটোটেম্পুতে করে কাঁচা তরিতরকারী নিয়ে সিংড়া গিয়ে বিক্রি শেষে ফেরার পথে এই দূর্ঘটনা ঘটে। থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, দূর্ঘটনা কবলিত ৩টি যানবাহন থানায় আটক রয়েছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন