বগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সদর ইউনিয়নের কেশরতা গ্রামের নিরীহ কৃষক বেলাল হোসেনের পৌনে এক বিঘা জমিতে স্থানীয় জিরাশাইল ধানে আগাছা নাশক বিষ ছিটিয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে। এতে বেলাল হোসেন নামের ঐ কৃষকের সারা বছরের খাবার সঞ্চয় (খোরাকী) থেকে বঞ্চিত। ফসল হারানো ঐ পরিবারের সদস্যরা এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। বেলাল হোসেনের স্ত্রী সারা বছরের সঞ্চয় হারানোর শোকে অঝড় ধারায় কাঁদছেন। এ বিষয়ে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক বেলাল হোসেন আদমদীঘি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এদিকে রাতের অন্ধকারে এই ভাবে ঔষুধ প্রয়োগ করে ফসল নষ্ট হওয়ায় গ্রাম জুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।
ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক বেলাল হোসেন জানান, সে উপজেলার কেশরতা গ্রামের পূর্ব মাঠে একমাত্র সম্বল ওই পৌনে এক বিঘা জমিতে স্থানীয় জিরাশাইল ধান রোপন করে। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ঐ জমির নতুন ধান ঘরে উঠবে বলে আশায় বুক বেঁধেছিল তিনি। কিন্তু সেই স্বপ্ন আর বাস্তবায়ন হলো না তার। কে বা কাহারা রাতের আঁধারে আগাছা নাশক বিষ ছিটিয়ে তার এ পৌনে এক বিঘা জমির ধান পুড়িয়ে দিয়েছে। বেলাল হোসেনের স্ত্রী ফাহিমা বেগম জানান, তার স্বামী মানুষের বাড়ীতে দিন মজুরের কাজ করে সংসার চালায়। এই সামান্য জমিই তার একমাত্র সম্বল। ছেলে-মেয়েদের লেখাপাড়া কিভাবে তিনি চলবেন ভেবে পাচ্ছেন না।
এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ কামরুজ্জামান বুধবার দুপুরে জমি পরিদর্শন করে জানান, আগাছা নাশক ছিটিয়ে দেয়ার কারণে গাছসহ সব ধান বিনষ্ট হয়ে গেছে। বর্তমান অবস্থা দেখে এই জমিতে বেশি বেশি পানি স্প্রে করার পরামর্শ দেন এই কৃষি কর্মকর্তা। আদমদীঘি থানার এস আই মিনার আলী বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাটি যেই ঘটিয়ে থাকুক না কেন তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন