বগুড়া সংবাদ ডট কম(শেরপুর প্রতিনিধি কামাল আহমেদ) : বগুড়ার শেরপুরের নাকুয়া এলাকায় প্রেমিককে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তার সামনেই এইচএসসি পরীক্ষার্থীনীকে ৩ বখাটে যুবক গণধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত ২ ধর্ষণকারীকে গত রোববার সন্ধ্যায় গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো ধুনট উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের চর খাদুলী গ্রামের মাসুদ রানার ছেলে সোহাগ হোসেন (২০) ও ভাদাইলহাটা গ্রামের স্কুল শিক্ষক শাজাহান আলীর ছেলে স্বপন মিয়া (২১)। জানা যায়, ধুনট উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের প্রতাপ খাদুলী গ্রামের মঞ্জুয়ার রহমানের মেয়ে চান্দাইকোনা হাজী ওয়াহেদ-মরিয়ম অনার্স কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী। ওই ছাত্রীর সাথে রংপুর জেলা সদরের খটখটিয়া গ্রামের শামীম আহমদের মুঠোফোনে পরিচয় হয়। সেই পরিচয়ের সূত্র ধরে তাদের মধ্যে গভীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এ অবস্থায় গত ২৬ মার্চ প্রেমিক শামীম আহম্মেদ প্রেমিকার বাড়িতে আসে এবং পাশ্ববর্তী শেরপুর উপজেলার নাকুয়া দাখিল মাদ্রাসার একটি কক্ষে বসে কথা বলছিল প্রেমিক প্রেমিকা। এ সময় ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপজেলার নাকুয়া গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে আকুল মিয়া এবং গ্রেফতারকৃত স্বপন ও সোহাগ নামে তিন বখাটে যুবক প্রবেশ করে। এরপর ৩ বখাটে মিলে প্রেমিক যুগলকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একটি কক্ষে আটকে রেখে বিশ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। কিন্তু টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে প্রেমিক যুগল। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে ৩ বখাটে তাদের মারধর করে। এক পর্যায়ে প্রেমিক শামীমকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তার সামনেই প্রেমিকাকে ওই তিন বখাটে যুবক পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে। এদিকে ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তদের নানা হুমকি-ধামকির কারণে আইনের আশ্রয় না নিয়ে ঢাকায় গিয়ে আত্মগোপন করে প্রেমিক যুগল। তবে ২ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে গত ১এপ্রিল বাড়িতে ফিরে মেয়েটি পরিবারের কাছে ঘটনাটি প্রকাশ করে দেয়। এ ঘটনায় ধর্ষিতার বাবা মঞ্জুয়ার রহমান বাদি হয়ে শেরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। ধর্ষনের শিকার মেয়েটি সোমবার সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার লক্ষীকোলা ডিগ্রী কলেজ কেন্দ্রে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। এ প্রসঙ্গে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম বলেন, ভিকটিম ও বখাটেদের বাড়ি ধুনট থানা এলাকায় হলেও ঘটনাস্থল শেরপুর উপজেলায়। এ কারনে ধুনট থানা পুলিশের সহযোগীতায় ২ বখাটেদের রোববার সন্ধার দিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে  বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভিকটিমের শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন করা হবে বলে ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন